নেতৃবৃন্দ যদি মনে করেন আমি যোগ্য তাহলে ‍নির্বাচনে অংশগ্রহন করব : চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী

28
(রনি মজুমদার)স্টাফ রিপোর্টার
আবারো বেজে উঠেছে নির্বাচনী ডামাডোল।  ২০২১ সালে মেয়াদ শেষ হওয়ায় অনেকেই শুরু করেছেন নির্বাচনী প্রচারণা, জানান দিচ্ছেন প্রার্থীতার।  সারাদেশের ন্যায় বাগেরহাটের রামপাল উপজেলার বাশঁতলী ইউনিয়নেও বইছে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন এর আগাম হাওয়া। গত ২০১৬ এর নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে বিপুল ভোটে  চেয়ারম্যান পদে জয়লাভ করেছিলেন আলহাজ্ব শেখ মোহাম্মদ আলী।  বিভিন্ন প্রতিকুলতা পেরিয়ে উন্নয়নের ধারায় পড়তে না পড়তেই করোনা মহামারীতে থমকে যায় গ্রামীন জীবন। করোনা মহামারী মোকাবেলায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ মেনে করেছেন ত্রান বিতরন, ছিলেন অসহায় মানুষের পাশে।  স্থানীয় সাংসদ ও উপমন্ত্রী হাবিবুন্নাহার এবং খুলনা সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেকের সহায়তায় এই এলাকার কোন মানুষকে করোনার সময় কষ্ট পেতে হয় নি। নিজস্ব তহবিল থেকেও প্রায় ১০ লক্ষাধিক নগদ টাকা এবং নিজের রাইস মিলের চাল বিলিয়ে দিয়েছেন লকডাউনে কর্মহীন মানুষের জন্য।  কারন এটা যে তার পারিবারিক শিক্ষা।  তার বাবা যেমন দানবীর ছিলেন ঠিক তার উত্তরাধিকার এই পুত্র যেন বাবার সেই মহানুভব ঐতিহ্য ধরে রেখেছেন। সম্ভান্ত এই পরিবারের সকলেই উচ্চশিক্ষিত এবং প্রতিষ্ঠিত।
এলাকাবাসীর কাছ থেকে জানা যায়, করোনাকালীন সময় চায়ের দোকান যাতে বন্ধ থাকে তার জন্য প্রতিটি ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ও চায়ের দোকান প্রতি নগদ দুই থেকে তিন হাজার টাকা দিয়েছেন।
তার সাথে আলাপনে সিআইএনটিভি২৪ কে জানান, আমি এসবই করেছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী।  আমরা চাইলেই তৃনমূল থেকে অনেক কিছু করা সম্ভব।
আগামী নির্বাচনের বিষয়ে জানতে চাইলে নিজের কর্মকান্ড নিয়ে প্রচারবিমুখ এই চেয়ারম্যান বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এবং স্থানীয় আওয়ামী লীগ এর নেতৃবৃন্দ যদি মনে করেন আমি যোগ্য এবং মনোনয়ন দেন তাহলেই আমি নির্বাচনে যাব নচেৎ নয়।  কারন বঙ্গবন্ধুর এই নৌকাকে আমি কখনই অসম্মান করতে পারব না।