খুলনার-মশিয়ালী চাঞ্চল্যকর ট্রিপল মার্ডারের প্রধান আসামিসহ আটক ৩

533
মোঃ আল আমিন খান (ব্যুরো চিফ খুলনা)
খুলনার খানজাহান আলী থানার মশিয়ালী গ্রামে চাঞ্চল্যকর ট্রিপল হত্যা মামলার প্রধান আসামী বহিস্কৃত আওয়ামী লীগ নেতা শেখ জাকারিয়া, ও তার ভাই মিল্টন ও আরেক আসামী রাজুকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। জাকারিয়া ও তাঁর মেজ ভাই মিল্টন দীর্ঘদিন ধরে ধরাছোঁয়ার বাইরে ছিলেন।
এ নিয়ে ওই মামলার এজাহারভুক্ত ২২ আসামির মধ্যে ১৩ জন গ্রেপ্তার হলেন।অন্যান্য আসামিদের গ্রেপ্তারের জন্য চেষ্টা করা হচ্ছে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবির ইন্সপেক্টর এনামুল হক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে সকালে রাজধানীর মিরপুর এলাকার ১৮ তলা একটি ভবন থেকে তাদেরকে গ্রেপ্তার করে খুলনা মহানগর ডিবি পুলিশ। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবির ইন্সপেক্টর এনামুল হক জানান, গত ১৬ জুলাই নগরীর খানজাহান আলী থানার মশিয়ালী এলাকায় তিন জনকে গুলি করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনার পর শেখ জাকারিয়া আত্মগোপন করে। অনেকদিন চেষ্টার পর জাকারিয়াকে রাজধানী থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। জাকারিয়া ও অন্য দুই আসামিকে খুলনায় নিয়ে আসা হচ্ছে। তাদেরকে হত্যাকাণ্ডের কারণ এবং কারা কারা জড়িত ছিল সেসব বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। গত ১৬ জুলাই রাতে খুলনা মহানগরীর ইস্টার্ন গেটের মশিয়ালী এলাকায় শেখ জাকারিয়া বাহিনীর গুলিতে নিহত হন আটরা-গিলাতলা ইউনিয়নের মশিয়ালী গ্রামের মৃত বারিক শেখের ছেলে মো. নজরুল ইসলাম (৬০) ও একই গ্রামের মোঃ ইউনুচ আলীর ছেলে গোলাম রসুল (৩০)। এসময়ে গুলিবিদ্ধ হন মোঃ সাইফুল ইসলাম, আফসার শেখ, শামীম, রবি, খলিলুর রহমান ও মশিয়ার রহমানসহ আরও কয়েকজন। গুলিবিদ্ধ সাইফুল ইসলাম পরদিন সকালে মারা যান। অপরদিকে বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসীর গণপিটুনিতে মারা যায় জাকারিয়ার চাচাতো ভাই জিহাদ শেখ। এছাড়া হত্যাকারী সন্দেহে কয়েকজনের বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অগ্নিসংযোগ করে। পরে নিহত মোঃ সাইফুল ইসলামের পিতা মোঃ শহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে খানজাহান আলী থানায় ২২জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ১৫-১৬ জনকে আসামী করে মামলা দায়ে করেন যার মামলা নং-১২।