মিস্ত্রীপাড়ায় গুলির ঘটনায় কোন নিরাপরাধ মানুষ যাতে না জড়িয়ে যায় : শ্রম প্রতিমন্ত্রী

40

খালিশপুর থানা প্রতিনিধি:

খুলনার খালিশপুরে সংগঠিত হত্যাকান্ডের সঠিক কারণ অনুসন্ধান ও প্রকৃত দোষীদের খুঁজে বের করে দ্রুত বিচারের মুখোমুখি করার আহ্বান জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে খুলনা আ’লীগ নেতৃবৃন্দ। নেতৃবৃন্দ বিবৃৃতিতে বলেন অপরাধীর বা হত্যাকারীর কোন দল থাকতে পারে না। তারা সমাজ ও দেশের শত্রু। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা মাদক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সর্বদা জিরো টলারেন্স নীতি অবলম্বন করে চলেছেন।
আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে খুলনা আ’লীগ নেতৃবৃন্দ বলেন, এই হত্যাকান্ডের নিরপেক্ষ ও সঠিক তদন্ত করে প্রকৃত ঘটনা উদ্ঘাটনসহ অপরাধীদের গ্রেফতার করতে হবে। সে যদি আ’লীগের সদস্যও হয় তাহলে তাকেও আইনের আওতায় এনে বিচারের মুখোমুখি করতে হবে।

নেতৃবৃৃন্দ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর উদ্দেশ্যে বলেন, খালিশপুর থানার একজন এএসআই’র প্রকাশ্য মদদে মাদক ব্যবসা সংঘটিত হচ্ছে। ওই এএসআইয়ের প্রশ্রয়ে থাকা মাদক ব্যবসায়ীরাই খালিশপুুরে মাদক ব্যবসাসহ সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে।  সুতরাং নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে খুুনের এই রহস্য উদ্ঘাটন করতে হবে। একই সাথে পুলিশ প্রশাসনকে ঢেলে সাজিয়ে মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। পুুলিশের ব্যর্থতার দায়ভার কোন অবস্থাতেই সরকার বা আ’লীগ বহন করবে না।

অপরদিকে পুলিশের ব্যর্থতার কারণে নগরীর মিস্ত্রীপাড়ায় গুলি ছুড়ে এলাকাবাসিকে আতঙ্কিত করেছে একজন ঠিকাদার। যার সঠিক রহস্য উদ্ঘাটন অত্যন্ত জরুরি। গুলির ঘটনার প্রকৃত রহস্য উদ্ঘাটন করে প্রকৃত দোষীকে আইনের আওতায় আনতে হবে। সে যতবড় ক্ষমতাবানই হোক না কেন। কারোর মিথ্যাচারে যেন কোন নিরাপরাধ মানুষ যাতে না জড়িয়ে যায় সেদিকে বিশেষ দৃষ্টি রাখার আহ্বান জানিয়েছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি, মহানগর আ’লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, বঙ্গবন্ধু ভ্রাতুষ্পুত্র ও খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ সালাহউদ্দীন জুয়েল, জেলা সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশিদ, মহানগর সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা, জেলা সাধারণ সম্পাদক এড. সুজিত অধিকারী।