সাতক্ষীরা পাটকেলঘাটা থেকে নিখোঁজ গৃহবধু তিনদিন পরে উদ্ধার

66

বদরুজ্জামান খোকা

সাতক্ষীরা জেলার কলারোয়া উপজেলার ভাদিয়ালি গ্রাম থেকে বিগত ২৫ আগস্ট সামিরা খাতুন ২৫ নামের গৃহবধূ নিখোঁজ হওয়ার খবর পাওয়া যায়। সে ভাদিয়ালি গ্রামের মৃত রফিকুল কারিগর এর ছেলে আলতা মূল ২৯ এর সাথে বিগত চার বছর আগে বিবাহ বন্ধন সম্পন্ন হয় তালার নগরঘাটা ইউনিয়নের সিরাজুলের মেয়ে সামিরার বিয়ের এক বছর পর থেকে যৌতুকের দাবিতে স্বামী শাশুড়ি ও দেবর মিলে চাপ দিতে থাকে এক পর্যায়ে বিভিন্ন সময়ে তারা ওই গৃহবধুকে নির্যাতন করতে থাকে। এরই মাঝে তাদের ঘরে জন্ম হয় মুস্তাফিজুর নামে এক পুত্র সন্তান। গৃহবধূ সামিরার বাপ-ভাই মনে করেছিল সন্তান হওয়ার পর তাদের মেয়ের উপর হয়তো অত্যাচার আর করবে না কিন্তু অত্যাচার আরো বেড়ে যায়।

খোঁজ নিয়ে জানা যায় আলতামূল ভাদিয়ালি এলাকার একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। তার নামে একাধিক মামলা আছে। তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা ও মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। ভারত – বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী সোনাই নদীর একেবারে গা ঘেসে বসত ভিটা হওয়ার সুবাদে কতিপয় কিছু বিজিবি কর্মকর্তাদের অজান্তেই অবাধে চলে তার মাদক ব্যবসা। আর এই ধরণের মাদকদ্রব্য কারবারির কোন রকম সমস্যা হলে ওই এলাকার একজন মেম্বরপুত্র তাদের সকল শেল্টার দেন বলেও অভিযোগ করেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি।

বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে সামিরাকে না পাওয়া গেলে সামিরার ভাই নগরঘাটা গ্রামের মোঃ সিরাজুল ইসলামের ছেলে মোঃ শাহিনুর রহমান শাহিন বাদী হয়ে কলারোয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন। অভিযোগে শাশুড়ি মোছাম্মদ আম্বিয়া খাতুন (৫৫) স্বামী মোঃ আলতামূল হোসেন (২৯) দেবোর শিমুল হোসেন (২০) এই তিনজনকে বিবাদী করে অভিযোগ করেন।

এক পর্যায়ে সাতক্ষীরা জেলার পাটকেলঘাটা থানা এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়। গৃহবধূ সামিরা উদ্ধারের সময় তার স্বামী আলতা মূল সেখানে উপস্থিত ছিলেন। বর্তমানে সামিরা তার বাবার বাড়িতে অবস্থান করছে।

এ বিষয়ে আলতা মূল বলেন আমার স্ত্রীর করাও সকল অভিযোগ সত্য না সাংসারিক ও পারিবারিক কারণে তাকে দু-একবার মারধর করা হয়েছে। আর আমার নামে মাদক মামলা আছে এটা সত্য আমি মাদক ব্যবসা করতাম আগে এখন আর করিনা।

এবিষয়ে সামিরার পিতা সিরাজুল ইসলাম বলেন, আমার মেয়েকে তারা খুব নির্যাতন করে আমি প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তাদের কাছে এর সুষ্ঠ বিচার দাবি করছি।

ভাই শাহিনুর রহমান শাহিন জানান, বিভিন্ন সময়ে আমার বোন জামাই আমাকে অর্থনৈতিক সমস্যা জানালে আমি তার বাড়িতে চাল, ডাল, তরকারি ও নগদ অর্থ প্রদান করি তবুও আমার একটি মাত্র ছোট বোনকে তারা নির্যাতন করে। তাই আমার পরিবারের পক্ষ থেকে ওই মাদক ব্যবসায়ীদের আসামী করে মামলা করবো বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছি।