খানজাহান আলী থানা প্রেস ক্লাবের উদ্যেগে বঙ্গবন্ধুর ৪৫তম শাহাদাৎ বার্ষিকী পালন

24

ডেক্স রিপোর্ট

হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি , বাংলার রাখাল রাজা, স্বাধীনতার স্থপতি যে বিশেষন দেওয়া হোক না কেন। তাতে যেন সাধ মেটেনা। বলছি ১৭ কোটির মানুষের প্রাণের স্পন্দন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কথা। ঘাতকের বুলেট ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট কেড়ে নেই আপামর জনতার প্রিয় নেতা শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের প্রতিটি সদস্যর প্রাণ । তবে সৌভাগ্যক্রমে বিদেশে থাকার কারণে বঙ্গবন্ধুর প্রিয় দুই তনয়া  শেখ হাসিন ও শেখ রেহেনা বেঁচে যান। সেই থেকে ১৫ আগষ্ট আসলে সারা দেশ কালো মেঘে ঢেকে যায়। পুরো আগষ্ট মাসকেই শোকের মাস হিসেবে বাঙালি জাতি মনে করেন।

এর ধারাবাহিকতায় শনিবার বিকাল ৫টায় খুলনার খানজাহান আলী থানা প্রেস ক্লাবের উদ্যেগে বঙ্গবন্ধুর শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতিয়  শোক দিবস উপলক্ষে শিরোমনিস্থ কার্যালয়ে দোয়া ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় প্রেস ক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোশারফ হোসেন হাওলাদারের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারী শেখ আসলাম  হোসেন এর সঞ্চালনায়  প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন ১নং আটরা গিলাতলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব  শেখ মনিরুল ইসলাম।

বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন থানা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার স.ম  রেজোয়ান। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন  সিনিয়র সাংবাদিক আনন্দ কুমার স্বর, আবু হামজা বাঁধন, মোড়ল মুজিবর রহমান, বদরুল আলম, শ্রমিক  নেতা বায়জিদ সরদার, অনিমেষ কুমার মন্ডল, জিয়াউল ইসলাম, ইদ্রিস আলী, ফরহাদ মোড়ল,  মামুন মোল্যা, শেখ হাফিজুর (প্রমুখ)।

আলোচনা সভা শেষে শিরোমনি বাজার জামে মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ আতাউর রহমান  দোয়া অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন।  এসময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও শেখ রেহেনার আয়ু ও কর্মজীবনের সাফল্যের জন্য বিশেষ দোয়া করা হয় এবং ৭৫এর ঘাতকের হাতে নিহত  শেখ মুজিবুর রহমান ও পরিবারের নিহতদের স্মরনে তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করা হয়।