মশিয়ালীতে গৃহবধূ হিরার পোস্টমর্টেম রিপোর্টের অপেক্ষায় পুলিশ

178

মামুন মোল্যা- জেলা প্রতিনিধি-খুলনা।

শুধু খুলনা নয়। এখন সারা বাংলাদেশের পরিচিত হট স্পট মশিয়ালী গ্রাম।  সাম্প্রতিক জাকার, জাফরিন ও মিল্টন বাহিনীর তান্ডবে  ট্রিপল মার্ডারের রেশ কাটতে না কাটতেই মশিয়ালী থেকে সামান্য দূরে বোমা সাদৃশ্য উদ্ধার করল পুলিশ। এদিকে রহস্যজনক ভাবে গৃহবধূ হিরার মৃত্যু ঘটল। তবে হিরার মৃত্যু নিয়ে জনমনে বিভিন্ন প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।  ইতিমধ্যে এলাকায় গুঞ্জন উঠেছে হিরাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। তবে পুলিশ অপেক্ষায় রয়েছে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসার। রিপোর্টটি হাতে আসলে স্পষ্ট হবে হিরা আত্মহত্যা করেছে না তাকে কেউ হত্যা করেছে।

এদিকে হিরার স্বজনরা দাবি করেছেন,“ হিরার দাম্পত্য জীবনের ১১ বছর পার করেছে। এর আগেও তাকে একাধিক বারা তার স্বামী এম কে এ জিয়াম শারিরীকভাবে নির্যাতন করেছে। ৪ বছরের শিশু তামিমকে হিরা জীবনের থেকেও বেশি ভালবাসত।  এতকিছুর পরেও হিরার আত্মহত্যা করবে এটা কখনও মানব না। হিরার বোন মুঠোফোনে বলেন, আমার বোনকে তাঁর স্বামী জিয়াম ও জারা নামে মহিলা মেরে ঝুলিয়ে আত্মহত্যার নাটক সাজিয়েছে।

খানজাহান  আলী থানার ওসি কবির হোসেন সিআইএনটিভি২৪কে জানান, গৃহবধূ হিরার মৃত্যুর বিষয় নিয়ে সকল প্রশ্নের অবসান ঘটবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসলে। আর আমরা এ পর্যন্ত একজনকে আটক করেছি। মামলার বিষয়টি চুলচেরা তদন্ত করা হচ্ছে।

হিরার মৃত্যুকে নিয়ে কোন নতুন নাটক যেন কেউ তৈরি না করে, তাই অবলিম্বে মামলার মুটিভ উদ্ধার পূর্বক জড়িতদের শাস্তির দাবি জানান স্থানীয়রা।

উল্লেখ্য, ২০ আগষ্ট হিরার ভাই বাদি হয়ে খানাজাহান আলী থানায় মামলা দায়ের করেন।