মশিয়ালীগ্রামে ট্রিপল হত্যার মামলায় আসামীদের ফাঁসির দাবিতে প্রতিবাদ সভা ও মিছিল

329

আবু হামজা বাঁধন, ডেক্স রিপোর্ট

সারা বাংলাদেশের বহুল আলোচিত খুলনার মশিয়ালী গ্রামের ট্রিপল হত্যা মামলার ঘটনাটি। ঘটনার ৬দিন অতিবাহিত হলেও মামলার প্রধান আসামী জাকারিয়া ও মিল্টন পুলিশি ধরা ছোঁয়ার বাইরে রয়েছে। ইতিমধ্যে কুখ্যাত সন্ত্রাস জাফরিন গ্রেফতার হয়েছে। তবে এলাকাবাসি ঘটনার নেপথ্যে জড়িত প্রত্যেকটি আসামিকে ফাঁসির দাবিতে প্রতিদিনই প্রতিবাদ ও মিছিল অব্যহত রেখেছে।মিছিলে গ্রামের বৃদ্ধা বনিতা যুবক যুবতী সহ রাজনৈতিক অরাজনৈতিক প্রতিটি ব্যক্তি যোগ দেয়।

তারই ফলশ্রুতিতে আজ বুধবার বিকাল ৫টার দিকে স্বজন হারা  শোক ও দোষীদের সব্বর্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে মশিয়ালী গ্রামবাসি একজোটে মিছিল বের করে। মিছিলটি ইস্টার্নগেট সহ বিভিন্ন স্থান প্রদক্ষিন করে শেষ হয়। মিছিল শেষে ইস্টার্ণগেট চত্বরে এক প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়।

প্রতিবাদ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে  উপস্থিত ছিলেন খানজাহান আলী থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ আবিদ হোসেন। আবিদ হোসেন তার বক্তব্যে বলেন, সন্ত্রাসী অত্যান্ত সুচতুর । তারা বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক, প্রশাসনিক ব্যক্তিদের সাথে ফেসবুকে ছবি তুলে তা প্রচার করে ফায়দা তুলে। আবিদ হোসেন আরো বলেন, ট্রিপল হত্যা মামলার সাথে জড়িতদের অবিলম্বে  গ্রেফতার করতে হবে। এ জন্য খুলনা মহানগর আওয়ামীলীগ সর্বাত্মকভাবে পাশে থাকবে।

এদিকে ৩৬নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি ও প্রখ্যাত শ্রমিক নেতা সরদার আব্দুল হামিদ বলেন ,“ আমি এই সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে আজীবন সৌচ্চার ছিলাম। কোন ভাবেই সন্ত্রাসীর এবার পার পাবে না । আমরা শহীদদের রুহের সাথে বেঈমানি করব না। আমরা এই সন্ত্রাস , মাদক ব্যবসায়ি অস্ত্রধারিদের উৎখাত করে একটি আদর্শ গ্রাম গড়ে তুলতে চাই।

প্রতিবাদ সভায় অন্যান্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন, ইউপি সদস্য শিরিনা আক্তার, ইউপি সদস্যা বখতিয়ার পারভেজ, ৩৬নং ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মুন্সী শামীম, তাঁতী লীগে খুলনা মহানগর শাখার সদস্য রেজোয়ান আকুঞ্জী রাজা,  রবিউল ইসলাম, ইউসুফ গাজী,  শরিফুল ইসলাম, মিতুল শেখ, মানবাধিকার কর্মী ইলিয়াস হোসেন প্রমুখ।