অভয়নগরে ৫০ বছরে উদ্ধার হয়নি ২৫০০ ফুট সরকারি রাস্তা

39

মেহেদী হাসান ইরান, স্টাফ রিপোর্টার

অভয়নগর উপজেলার ৬নং বাঘুটিয়া ইউনিয়নের মরিচা গ্রামের একটি সরকারি রাস্তা বছরের পর বছর ধরে জবর দখলে করে যাতায়াতের পথ বন্ধ করে ঘরবেধে ও গাছ লাগিয়ে রাস্তা বন্ধ রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে। যাতায়াতের এক মাত্র রাস্তা বে-দখল হওয়াতে প্রয় ৩০ টি পরিবারের এখন অসহায় নেই তাদের নিরাপদে বাড়ী যাবার কোন মাধ্যম অথচ আর এস রেকট ধারি পর্চায় রয়েছে ১৬ ফুট চওড়া ও ২৫০০ ফুট লম্ব সরকারি রাস্তা। অসহায় ভুক্তভূগিরা রাস্তা উদ্ধারের জন্য উঠে পড়ে লাগলে ও কোন কাজ হয়নি এখন বলে জানাগেছে। ঘটোনাস্থলে গিয়ে ও খোজ নিয়ে জানাযায় নওয়াপাড়া টু আমতলা সড়কের চাকই চৌরাস্তা গরু হাটের দক্ষিণ পার্শ্বে এতিম খানার সামনে দিয়ে ২২৭ নং সড়ক টি গিয়েছে দক্ষিণ দিকের গহর শেখর বাড়ী পাশদিয়ে ছবেদের বাড়ী পর্যন্ত যার দৈর্ঘ্য প্রয় ২৫০০ ফুট জানালেন স্থানীয় হাফিজুর রহমান। ষড় জমিনে গিয়ে দেখাগেছে উক্ত রাস্তাটির দু’ পার্শ্বে অবস্থান রত একাধিক ভূমি মালিকেরা রাস্তা টি দখলে রেখেছে। রাস্তার ম্যাপ অনুযায়ী উক্ত রাস্তার জায়গা দখলে রেখছে ১. ২৩৬ নং দাগের জমির মালিক মৃত আবু বাক্করের ছেলে আহম্মদ শেখ, ২. ২৩৮ নং দাগের জমির মালিক মৃত খালেকের ছেলে মোরশেদ ৩. ২৩৯ নং জমির মালিক মৃত নবাতুল্য ছেলে সূর্যবান ৪. ২৪১ নং দাগের দাগের মালিক মৃত নবাতুল্য ফকিরের ছেলে গপ্ফার ফকির ৫. ২২১ নং জমির মালিক মৃত ছমির শেখের ছেলে শওকাত ও আউলি শেখ ৬. ২১২ নং জমির মালিক মৃত অহিল শেখের ছেলে কামাল দিং,৭. ২১৪,২১৮,২১৬,২২৪,২২৫, নং দাগের মালিক মৃত ছবেদ শেখের ছেলে ওমর দিং ৮. ২২৩ নং দাগের মালিক মৃত নজরুল ইসলারে ছেলে মামুন দিং ৯. ২২২ নং জমির মালিক মৃত ওহিল শেখের ছেলে কামাল দিং ও ১০. ২২৮ নং জমির মালিক অওউলি শেখ। স্থানীয় ১নং ওয়াডের মেম্বর গোলঅম মোস্ত ফা মোছা জানালেন স্থানীয় ভূক্তভুগি কোন ব্যক্তি তাকে কিছু না জানানোর কারণে বিষয় টি তার জানানেই,তবে রাস্তা এতিম খানা পর্যস্ত আছে পরে আর নেই। সচেতন মহর মনে করেন গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের নেতৃত্বে যখন দেশ এগিয়ে চলেছে ঠিক তখন একঠি স্বার্থনেষী মহল তারা তাদের নিজেদের স্বার্থ সিদ্ধি করার জন্য সরকারী রাস্তা জবর দখল করে সাধারণ মানুষের যাতায়াতের পথে প্রতিবন্ধকতা তৈরিকরার মত এই হীন কাজ করেচলেছে যা এখনই সময় প্রতিরোধ করা । রাস্তা বন্ধকরে ঘর নির্মান করার বিষয়ে বাঘুটিয়া ইউনিয়নের বর্তমান ভার প্রাপ্ত চেয়ারম্যান শেখ গোলাম হোসেন জানালেন এতিমখানা পর্যন্ত রাস্তা আছে এটা সে জানে, তবে বাকী রাস্তা কেহ আটকিয়ে রেখেছে কিনা তিনি তা জানেন না তবে রাস্তা কেহ দখলে রাখলে আগামীকাল (আজ) ঘটনা স্থলে গিয়ে তদন্ত করে সত্যতা পেলে রাস্তা উদ্ধারের ব্যবস্তা করবেন বলে এ প্রতিবেদক কে নিশ্চয়তা প্রদান করেছেন। স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গরা এ প্রতিবেদকের মাধ্যমে সরকারী দায়িক্ত রত কর্তা ব্যক্তিদের কাছে উক্তরাস্তা উদ্ধার করে সর্ব সাধারণের জন্য উন্মক্ত করে দিতে জোর দাবি করেছেন।।