ফরিদপুরে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও পৌর মেয়র সহ করোনায় নতুন আক্রান্ত ১০৮

15
আরিফুর রহমান সেতু,সিনিয়র ষ্টাফ রিপোর্টার  
মঙ্গলবার (২৩শে জুন) সন্ধ্যায় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজে স্থাপিত করোনা শনাক্তকরণ আরটি পিসিআর ল্যাব থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন  ফরিদপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি লোকমান হোসেন মৃধা ও ফরিদপুর পৌরসভার মেয়র শেখ মাহতাব আলী মেথু। ল্যাব সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার  ২৩শে (জুুন) ফরিদপুর মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবরেটরিতে ৩৭৬ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এরমধ্যে ১৩২ জনের করোনা পজিটিভ এসেছে, যার মধ্যে ফরিদপুরের ১০৮টি। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ১৪১৪ জনে। ফরিদপুরে করোনা পজিটিভ শনাক্ত ১০৮ জনের মধ্যে ফরিদপুর সদর উপজেলায় ৫৫ জন, ভাঙ্গায় ২৬ জন, নগরকান্দায় ১২ জন, বোয়ালমারীতে ৭ জন এবং সালথা ও মধুখালীতে ১ জন করে।
ফরিদপুর সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাহফুজুর রহমান বুলু জানান, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান লোকমান হোসেন মৃধা কয়েকদিন যাবতই শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। গত পরশুদিন থেকে তিনি ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। সেখান থেকেই তার নমুনা সংগ্রহ করে আজ পরীক্ষা করানো হয়। অপর দিকে ফরিদপুর পৌর মেয়র শেখ মাহাতাব আলী মেথু ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতালে করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দিয়েছিলেন। পরীক্ষায় চেয়ারম্যান ও মেয়র ২ জনেরই পজিটিভ এসেছে। পৌর মেয়র এখনো সুস্থ আছেন। তাই তিনি বাড়িতেই চিকিৎসা নিবেন।
এছাড়া পৌর মেয়র শেখ মাহতাব আলীর মেথুর গাড়ী চালক মো. আব্দুস সবুরও কোভিড-১৯ আক্রান্ত বলে জানিয়েছে ল্যাব সূত্র। এছাড়াও ফরিদপুরে আক্রান্ত ১০৮ জনের মধ্যে পুলিশ সদস্য, র‌্যাব সদস্য, চিকিৎসক, স্বাস্থ্য কর্মী রয়েছেন।
ফরিদপুরের সিভিল সার্জন মো. সিদ্দিকুর রহমান জানান, আক্রান্তদের আপাতত বাড়িতে রেখেই চিকিৎসা দেয়া হবে। অবস্থার অবনতি হলে ফরিদপুর মেডিকেলের করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হবে। ফরিদপুরের পুলিশ সুপার মো. আলীমুজ্জামন জানান, নতুন আক্রান্তদের বাড়ি স্বাস্থ্যবিধি মোতাবেক বিচ্ছিন্ন করা হবে।