খুলনায় সাংবাদিক আজিমের ওপর সন্ত্রাসী হামলা

32

মাদক বিক্রির প্রতিবাদের জের ধরে খুলনা থেকে প্রকাশিত দৈনিক প্রবাহের স্টাফ রিপোর্টার এবং মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়ন (এমইউজে) ও রূপসা প্রেস ক্লাবের সদস্য এমএ আজিমের ওপর হামলা চালিয়েছে চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীরা। রোববার (৭জুন) বিকেলে রূপসা উপজেলার নৈহাটি শহীদ মিনার সড়কে তার শ্বশুর বাড়ির সামনে সন্ত্রাসীরা তার ওপর এ হামলা চালায়। এতে সাংবাদিক আজিম গুরুতর আহত হন।

খবর পেয়ে রূপসা প্রেস ক্লাব নেতারা আহত আজিমকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছেন। একই সঙ্গে হামলাকারী ও চিহ্নিত সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে স্থানীয় থানা পুলিশকে অবহিত করা হয়েছে। সাংবাদিক নেতারা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে হামলাকারী সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার পূর্বক কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, দীর্ঘদিন ধরে নৈহাটি শহীদ মিনার রোড এলাকায় জনৈক জামাল মাদকের রমরমা ব্যবসা চালিয়ে আসছিল। সাংবাদিক আজিম এর প্রতিবাদ করায় জামাল সংঘবদ্ধ হয়ে চিহ্নিত সন্ত্রাসী আলমগীর হোসেন ওরফে বাঘা ও মৃত লোকমান দারোগার ছেলে শাকিলকে নিয়ে রোববার (৭ জুন) বিকালে শহীদ মিনার রোড এলাকায় আজিমের উপর হামলা চালায়। এ সময় দুর্বৃত্তরা আজিমকে বেধড়ক মারপিট করে জখম করলে তার আত্মচিৎকারে আশে পাশের লোক এগিয়ে এলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে রূপসা প্রেস ক্লাবের নেতৃবৃন্দ সাংবাদিক আজিমকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

আহত সাংবাদিক আজিম জানান, রূপসার নৈহাটি শহীদ মিনার রোড এলাকার জামাল মুন্সি তার বাড়িতে মাদকের রমরমা ব্যবসা চালিয়ে আসছে। গত ২/৩ বছর আগে মাদকসহ জেলা ডিবি পুলিশ তাকে গ্রেফতারও করে। তিনি এ ঘটনার প্রতিবাদ করায় এবং তার গ্রেফতারের পিছনে তাকে সন্দেহ করে মূলত: জামাল তার ওপর ক্ষিপ্ত হয়। এরই জের ধরে জামাল মুন্সি সন্ত্রাসী বাঘা ও সাকিলকে ডেকে এনে তার ওপর হামলা চালিয়েছে।

হামলাকারী আলমগীর হোসেন বাঘা ফকিরহাটের জনপ্রিয় চেয়ারম্যান জাহিদ হত্যা মামলার এজাহারভূক্ত আসামি বলে অপর সূত্রে জানা গেছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের জন্য রূপসা থানা পুলিশের পক্ষ থেকে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।