সুপার সাইক্লোনে এ পরিনত হল ‘আমফান, ৭ নং বিপদসংকেত চলমান

50
আরিফুর রহমান সেতু 
 ২৪ ঘন্টায় ঘূর্ণিঝড় থেকে সুপার সাইক্লোনে  রুপ নিয়েছে আমফান।  গত ২৪ ঘন্টায় ক্যাটাগরি ৩ থেকে ক্যাটাগরি ৪ এ রুপান্তরিত হয়েছে ঘূর্ণিঝড়  ‘আমফান’ গতি পথ বদলে ইতি মধ্যেই পাখির চোখ করেছে বাংলাদেশ ও ভারতের সুন্দরবনের  সীমান্ত এলাকাকে। গত ২৪ ঘন্টায় আগে এর অবস্থান ছিল  বঙ্গোপসাগরে 12.0N 86.4E এর নিকটে এবং কেন্দ্রে বাতাসের গতি ছিল সর্বাধিক  ১৩৮ কিমি / ঘন্টা (০৭৫ কেটি) এবং গাস্ট ১৬৬ কিমি / ঘন্টা (০৯০ কেটি)।২৪ ঘন্টার ব্যবধানে এখন এর বাতাসের গতি বৃদ্ধি পেয়ে সর্বোচ্চ   ২৫৯কিমি / ঘন্টা (১৪০ কেটি) এবং গাস্টস ৩১৪কিমি / ঘন্টা (১৭০কেটি) দিয়ে 13.6N 86.4E এর কাছাকাছি  অবস্থান করছে।
 ২৪ ঘন্টা আগে বলা হয়েছিল এই  ঘূর্ণিঝড়টি হারিকেন ক্যাটাগরি  ১  এবং সম্ভবত এটি উত্তর-পূর্বের উপকূলে পৌঁছালে  হারিকেন ক্যাটাগরি ৩ এ পরিণত হতে পারে। ২৪ ঘন্টার ব্যবধানে এখন বলা হচ্ছে এটি হারিকেন ক্যাটাগরি ৪ এ পরিনত হয়ে উপকূলে মঙ্গলবার রাত থেকে বুধবারের মধ্যে  আছড়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
বুধবার দুপুরে ওড়িশা রাজ্য, পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশের সুন্দরবন অঞ্চল দিয়ে ঘূর্ণিঝড়টি সুপার সাইক্লোনিক ঝড়ের মতো আঘাত হানবে বলে আশা করা হচ্ছে। আমফান পরবর্তী ১২ ঘন্টার মধ্যে শক্তি অর্জন করবে, কিন্তু উপকূলে পৌঁছানোর সাথে সাথে এটি দুর্বল হতে পারে।
আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে এখন পায়রা ও মংলা সমুদ্র বন্দরকে ৭ নং বিপদসংকেত এবং চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারকে ৬ নং বিপদসংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।