বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম লাগামহীন

19

রনি মজুমদার, স্টাফ রিপোর্টার

পবিত্র রমজান মাস শুরু হওয়ার আগেই ঢাকা সহ বিভিন্ন এলাকার বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম বেড়ে যাওয়ায় হতাশায় ভুগছে সাধারণ মানুষ। করোনাভাইরাসের প্রভাবে কর্মহীন শ্রমজীবী মানুষগুলো আরো বেশি অসহায় হয়ে পড়েছে বাড়তি দামের কারণে। বিভিন্ন বাজার  ঘুরে দেখা গেছে, এক সপ্তাহের ব্যবধানে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম বেড়ে প্রায় দ্বিগুণ হয়েছে। ৪০ টাকার পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকায়, ৩০ টাকার শসা বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকায়, দেশী মশুরের ডাল কেজিতে বেড়েছে ১০-১৫ টাকা, আদা ৩৫০ টাকায়, ৬০ টাকার রসুন বর্তমানে ১২০ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে। এছাড়া কাঁচা বাজারেও প্রতিটি পণ্যের দাম আগের তুলনায় বেড়েছে। ২০ টাকার আলু বিক্রি হচ্ছে ২৮ থেকে ৩০ টাকায়, ঢেড়শ, টমেটো, বরবটি কেজিতে ১০-১৫ টাকা বেড়েছে। এদিকে রমজান মাস শুরু হওয়ায় মুড়ি বিক্রি হচ্ছে ১০০-১২০ টাকায়।

মুদি দোকানগুলোতে ঘুরে দেখা যায়, ইফতার সামগ্রীর দামও বেড়েছে। ১৫০০ টাকার ৫০ কেজি চালের বস্তা বর্তমানে বিক্রি হচ্ছে ২১০০ – ২২০০ টাকায়। এদিকে এলাকার স্থানীয় বাজার  ছাড়িয়ে পাইকারি বাজার  গুলোতেও সব পণ্যের দাম বেড়েছে। সাধারণ ক্রেতাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, বাজারে প্রতিটি পণ্যের দাম বেড়েছে। যথাযথ মনিটরিং ব্যবস্থা না থাকায় অসাধু ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে প্রতিটি পণ্যের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে। তারা আরো জানান, এমনিতেই করোনা ভাইরাসের কারণে মানুষের দিন কাটছে অনেক কষ্টে। তার উপর দ্রব্যমূল্যের দাম অসহনীয় থাকায় যেন মরার উপর খাড়ার ঘা। জানতে চাইলে বাজার ব্যবসায়ীরা বলেন, নিত্য প্রয়োজনীয়  প্রতিটি পণ্যই বর্তমানে বাড়তি দাম দিয়ে কিনতে হচ্ছে। করোনা ভাইরাসের কারনে পণ্য পরিবহন খরচসহ অন্যান্য খাতেও ব্যয় বেড়েছে। তাই পণ্যের দাম কিছুটা বেড়েছে।