খালিশপুরে অস্বাস্থ্যকর ও নোংড়া পরিবেশে তৈরি হচ্ছে খুলনা ফুডের বেকারীর সামগ্রী 

31
মোঃ আল আমিন খান,ব্যুরো চিফ খুলনা
মঙ্গলবার বিকাল ৫ টার সময় সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় খুলনা খালিশপুর রেল ক্রসিং এর সামনে অবস্থিত খুলনা ফুড এর বেকারীর কারখানা। উপর দিয়ে ফিটফাট থাকলেও ভীতরে গিয়ে দেখা যায় সদরঘাট। ভীতরে অসংখ্য শ্রমিক পুরুষ মহিলা কাজ করছে। কোন ব্যক্তির মুখে নেয় মাস্ক হাতে নেই কোন হ্যান্ড গ্লোবস। স্বাস্থ্য
অধিদপ্তরের বিভিন্ন সর্তক বার্তা ও দিক
নির্দেশনাকে কোন তোয়াক্কা না করে চলছে এই কারখানাটি। গত ০৫/০৪/২০২০ তারিখে খুলনার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন জনসচেতনার ও এড়াতে ও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে ঘোসনা দেন প্রতিদিন বিকাল ৫ টার পর নিত্য প্রয়োজনীয় সকল দোকান বন্ধ থাকবে। খোলা থাকবে শুধু ওষুধ, হাসপাতাল ও ডাক্তারখানা। জেলা প্রশাসকের ও
সরকারি আদেশ অমান্য করে স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তির কারনে এখনো চলছে খুলনা ফুড বেকারীর কারখানা। এখানেই শেষ নয় ভীতরে গিয়ে দেখা যায় স্যাতসেতে ও নোংড়া পরিবেশে তৈরি হচ্ছে বাহারি রকমের বিস্কুট কেক সহ নানা খাদ্য সামগ্রী। প্রতিটা খাবার আছে খোলা নেই কোন সুরক্ষার ব্যবস্থা। যেখানে সেখানে ছড়িয়ে আছে খাবার সামগ্রী। কথা হয় প্রতিষ্ঠানের মালিক আইয়ুব আলীর সাথে তার কারখানার এমন অবস্থা জানতে চায়লে সাংবাদিকদের কোন সঠিক উওর দিতে সে ব্যথ হয়। তিনি বলেন আমি একা নয় খুলনা শহরে এমন কারখানা বহু আছে তাদের সকলেই এভাবেই প্রতিষ্ঠান চালিয়ে আচ্ছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি বলেন এই কারখানা কোন কিছুর তোয়াক্কা করে না এলাকার লোকজন ভয়ে কিছু বলতেও পারে না এমনটা চলতে থাকলে করোনা ভাইরাস কোন ভাবেই প্রতিরোধ করা সম্ভব নয়। ঠিক মতন নজরদারির অভাবেই এমনটা হচ্ছে বলে মনে করেন সকলেই।
তাই এলাকার সচেতন মানুষের একটাই দাবি এই প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে কতৃপক্ষ যদি যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করেন তাহলে হয়তো অনেকেই স্বাস্থ্য সচেতন ভাবে চলবে এবং করোনা ভাইরাস অনেকটায় প্রতিরোধ করা সম্ভব বলে মনে করেন এলাকাবাসী।