ফকিরহাটে করোনা সুরক্ষার্থে প্রশাসন মাঠে দোকানদারদের প্রতি ক্রেতার ক্ষোভ?

15

 ফকিরহাট থেকে বাদশা আলম।

করোনা সচেতন সুরক্ষা ও সুস্বাস্থ্য রক্ষার্থে ফকিরহাট ও তার পার্শ্ববর্তী বাজারের বিভিন্ন দোকানে দোকানের সামনে সাদা চিহ্নিত গোলাকারে দাগের ভিতর ক্রেতাগন দাড়িয়ে নিত্য প্রয়োজনীয় মালামাল ক্রয় করছেন।গত ২৬ শে মার্চ থেকে এ পর্যন্ত ফকিরহাটের ১নং বেতাগা ইউনিয়ন সহ ৮ টি ইউনিয়নের বাজারের দোকানে এসব চিত্র দেখা যায় গত শুক্রবার থেকে লখপুর হাটের দিন হাট বন্ধ করা হয়েছে।লখপুর ইউনিয়ন আওয়ামিলীগ এর সভাপতি ও ইউপি পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ আবুল হোসেন করোনা মহামারী থেকে জন সাধারনদের সুরক্ষার্থে এই হাট বন্ধ ঘোষনা করেন  বলে জানান। লখপুর ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ  এর সাধারন সম্পাদক এম ডি সেলিম রেজা। এবিষয়ে স্বাগত জানান আওয়ামি শ্রমিকলীগ নেতা অপিয়ার রহমান অপি।এছাড়া শুভদিয়া,গৌরম্ভা,চুলকাঠি, বেতাগা, লখপুর,কাটাখালি স্টান্ড,নোয়াপাড়া, গাবখালি,বাহিরদিয়া মানসা,ফলতিতা,ফকিরহাট সদরের বাজারসহ কিছু মুদির দোকানদার রা তাদের ইচ্ছা মত নিত্য প্রয়োজনীয় মালামাল দামে বিক্রি করা সহ প্রশাসনে আগমনে খবর পেলে যত্রতত্র দোকান  বন্ধ করে বাজারের যেকোনো পাশে লুকিয়ে থাকছেন। এবিষয় কয়েকজন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বলেন  প্রশাসনের খবরে যারা দোকান বন্ধ করছে নিশ্চয় সে সব দোকানে হয়তো কোন রকম সমস্যা আছে।এ বিষয় শুক্রবার ও শনিবারে কয়েক জন মুদি দোকানদারদের সাথে কথা বলে জানা যায় প্রশাসন আসলে কোনো না কোনো ঝামেলা করবে যে কারনে দোকান বন্ধ করতে বাধ্য হচ্ছি। জনসাধারনদের প্রশ্ন আসল রহস্যটা কি? অন্যদিকে করোনা ভাইরাসে জনসাধারণকে সচেতন সুরক্ষা রাখতে ফকিরহাট উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামিলীগ এর সভাপতি স্বপন দাশ,উপজেলা নির্বাহি অফিসার শাহানাজ পারভিন ও ফকিরহাট মডেল থানার অফিসার ইনসার্জ আবু সাইদ মোঃ খায়রুল আনাম সকাল থেকে মোড়ে মোড়ে স্টান্ডে স্টান্ডে এবং ফকিরহাটে ৮ টি ইউনিয়নের বাজার গুলোতে দিন ও রাতে পরিদর্শনে যাচ্ছেন।