করোনা প্রতিরোধে কেসিসির জরুরী সভা

9

।।সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।।

বাংলাদেশের অভ্যন্তরে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ ও মোকাবেলার লক্ষ্যে খুলনা সিটি কর্পোরেশন এলাকার জন্য গঠিত কমিটির এক সভা আজ বুধবার বিকেলে নগর ভবনের জিআইজেড মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক। উল্লেখ্য, গত ১৫ মার্চ স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য বিভাগ এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে খুলনায় করোনা প্রতিরোধে সিটি মেয়র’কে সভাপতি করে ১০সদস্য বিশিষ্ট এ কমিটি গঠন করে।

সভাপতির বক্তৃতায় সিটি মেয়র বলেন, এ ভাইরাসের প্রতিষেধক ঔষধ এখনো আবিস্কার হয়নি। তাই প্রতিরোধই এর সংক্রমন থেকে রক্ষা পাওয়ার একমাত্র উপায়। সে কারণে আতংকিত না হয়ে এই রোগ থেকে রক্ষা পেতে প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে তুলতে হবে। করোনার ছোবল থেকে খুলনাবাসীদের রক্ষায় তিনি সংশ্লিষ্ট সকলকে আরো দায়িত্বশীল ও আন্তরিক হওয়ার আহবান জানান।

সভায় খুলনায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসার মূল কেন্দ্র হিসেবে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালকে নির্ধারণ করা হয়েছে। সাধারণ সর্দি-কাশি ও জ্বরে (করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত নয়) আক্রান্তদের চিকিৎসা খুলনা জেনারেল হাসপাতালসহ খুলনা আইডি হাসপাতাল, কেসিসি পরিচালিত আরবান হেলথ ক্লিনিকসহ বেসরকারি অন্যান্য হাসপাতালসমূহে প্রদান করা হবে। এ সকল হাসপাতালে চিকিৎসা দানকালে কোন রোগীর মধ্যে করোনা ভাইরাসের আশংকা দৃশ্যমান হলে সাথে সাথে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ ও চিকিৎসা প্রদানের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এ ছাড়া শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালে হার্ট, কিডনি, নিউরোসহ অন্যান্য জটিল রোগের চিকিৎসা অব্যাহত রাখার পাশাপাশি অন্যান্য রোগীদের (করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী ছাড়া) চিকিৎসা প্রদানের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

কেসিসি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (যুগ্ম সচিব) পলাশ কান্তি বালা, খুলনার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন, বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডাঃ রাশেদা সুলতানা, সিভিল সার্জন ডা. সুজাত আহমেদ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক জিয়াউর রহমান, খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. এ.টি.এম মনজুর মোর্শেদ, কেসিসি’র প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ও কমিটির সদস্য সচিব ডাঃ একেএম আব্দুল্লাহ, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা প্রকৌশলী মোঃ আব্দুল আজিজ, স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. স্বপন কুমার হালাদার, সহকারী স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. শরীফ শাম্মিউল ইসলাম, গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. গাজী মিজানুর রহমান, সিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চেয়ারম্যান ডা. সৈয়দ আবু আসফার, পরিচালক ডা. এম.এ আলী, খুলনা জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার মোঃ তকি ফয়সাল, শারমীন জাহান লুনা, আদ-দ্বীন হাসপাতালের ব্যবস্থাপক মোঃ হোসেন আলী প্রমুখ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

বিকাল ৫টায় নগর ভবনের জিআইজেড মিলনায়তনে খুলনা মহানগরীতে স্বাস্থ্য বিষয়ে কর্মরত এনজিওসমূহের প্রতিনিধিদের সাথে কেসিসি’র স্বাস্থ্য ও কঞ্জারভেন্সী বিভাগের কর্মকর্তাদের এক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক। সিটি মেয়র নগরীতে করোনা প্রতিরোধে সকল বেসরকারি সংস্থা কর্তৃক গৃহীত কার্যক্রম বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে কেসিসি’র সাথে সমন্বয়ের ওপর গুরুত্বারোপ করে বলেন, বিক্ষিপ্তভাবে কাজ না করে সমন্বিত ও পরিকল্পিতভাবে কাজ করলে অধিক ফলপ্রসু হবে। তিনি বৈশ্বিক এ দুর্যোগ থেকে খুলনাবাসীকে রক্ষায় সংশ্লিষ্ট সকলকে আন্তরিকতার সাথে কাজ করার আহবান জানান।

কেসিসি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (যুগ্ম সচিব) পলাশ কান্তি বালা, সচিব মো: আজমুল হক, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. একেএম আব্দুল্লাহ, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা প্রকৌশলী মো: আব্দুল আজিজ, স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. স্বপন কুমার হালদার, সহকারী স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. শরীফ শাম্মিউল ইসলাম, কঞ্জারভেন্সী অফিসার মো: আনিসুর রহমান, সহকারী কঞ্জারভেন্সী অফিসার নুরুন্নাহার এ্যানী, মো: আব্দুল রকিব, মোল্লা মারুফ রশীদ, মো: জিয়াউর রহমান, বেসরকারি সংস্থা নবলোক-এর প্রতিনিধি সুব্রত দাস, বাপসা’র প্রতিনিধি মো: গোলাম রসুল ও শিল্পী রাণী দাস, এসএইচএন-এর প্রতিনিধি মো: আনিস উদ্দীন, ব্রাক-এর প্রতিনিধি আবু মোজাফফর মাহমুদ, সিএসএস-এর প্রতিনিধি মো: আলী আকবর প্রমুখ সভায় উপস্থিত ছিলেন।