অভয়নগর রাস্তার কাজে অনিয়ম

17

ইমাদুল ইসলাম

অভয়নগর শুভনাড়া খেয়াঘাট ও কালনা খেয়াঘাট থেকে ঢাকা গামী রাস্তার তৈরি কাজে অনিয়ম পাওয়া গেছে।অভয়নগর এলাক বাশুয়াড়ী তিনটি কালভাট মোঃ সফিক শেখকের বাড়ির পাশে একটি এটাই নতুন করে কাজ চলছে।অনিময় অভিযোগ পাওয়া গেছে কালভাট ভালো হয়ছে না অভিযোগ হলো এলাকা বাসি ভালো করে কাজে না করে বেশি দিন থাকবে না বলে জানাই বাশুয়াড়ী এলাকা বাসি । ইদ্রিস মেম্বার বলছেন রাস্তার কাজের অনিময় হয়ছে মোঃ সফিক শেখকের বাড়ি পাশের কালভাট ঠিকাদার প্রতি আইন অনুযায় কাজ করতে হবে। এই কাকভাট দিয়ে পোতপাড়া বাশুয়াড়ী পশ্চিম পাড়া ও ভৈরব নদীর সাথে ছিলো একটি খাল আছে বলে জানা যায় ভূগিরহাট পি .পি.বি.মাধ্যমিক বিদ্যালায় পূবো পাশ দিয়ে খাল টি বয়ে চলে গেছে বাশুয়াড়ী পশ্চিম পাড়া দিয়ে বাশুয়াড়ী মোঃ শেখকে বাড়ির পাশে কালভাট আছে সেটা হলো ছোট্ট তাই বড় করে আরাক টি নতুন করা প্রজন এলাকা বাসা আবদার ঠিকাদারা কালভাটের প্রতি অনিয়ম করে তৈরি করছে বলে জানা যায়।ছোট্ট আগের টা বড় ছিলো বলে জানাই বাশুয়াড়ী এলাকা জনগনের মতামত জানা যায় এই রাস্তার কাজে অনিয়ম করে তৈরি করছে।এই কথার পাশা পাসী কালভাট আরো একটি কালভাট দাবি করছে মোঃ শরিফ শেখর জমির পাশ দিয়ে পানি সরোনো জন্য একটি ছোট্ট কালভাট সেটা হলে হবে না এই কালভাট দিয়ে বাশুয়াড়ী মাদ্রাসার আশে পাশের পানি যায়।কালভাট দিয়ে পানি যায়।বাশুয়াড়ী দক্ষিণ পাড়া মোঃকোনা গাজীর বাড়ি পাশে একটি কালভাট বাদ দেছে শুভনাড়া উওর মাটের বৃস্টির পানি কৃষকের ফসলের কোনো ক্ষতি যাতে না হয়।সে জন্য বৃস্টির পানি এই কালভাট সরোনো হয় পুরোনো কালভাট থাকলে রাস্তা ভালো হবে না নতুন করে কালভাট করতে প্রজন।বালে খালে ৯টি পাইব দিয়ে কালভাট তৈরি হয় আজ থেকে ২৭ বছর আগে তৈরি করা হয়। এটা ভালো আছে কি না তাকে ও জানে না নতুন করে কালভাট করতে হবে কিন্তু তা না করে কাজ চালিয়ে যাছে অনিয়ম করে কালভাট না করে রাস্তা তৈরি কাজ বন্দো করা জন্য এলাকার বাসী জানাই রাস্তার কাজ অনিয়ম করে যাছে।ঠিকাদারা রাস্তার দুই পাশে নতুন মাটি তুলে উচু করে রাস্তা তৈরি করে যাছে ঠিকাদারা এই ভাবে রাস্তা করলে ভালো হবেনা।মোঃগোলাম মল্লিকের বাড়ি সামনে কালভাট আছে নতুন করে না করলে ভালো নেই কয় একটি পরিবার বৃস্টির পানিতে তলায় যায় এই কালভাটি নতুন করে কাজ করা প্রজন।মোঃহালিম শেখর বাড়ি পাশের কালভাট মটে ভালো নেই অনেক দিন আগে নষ্ট হয়ে পড়ে আছে কিন্তুু নতুন করে কালভাট না করে রাস্তার কাজ চালিয়ে যাছে।এই কালভাট না নতুন করে না করলে মোঃ হালিম শেখ জানাই বৃস্টির হলে আমার বাড়ি সহ ২০টি পরিবারে পানিতে তলিয়ে যায় এই কালভাটির জন্য অনেক বার চেয়ারম্যান মেম্বারকে জানোর পর ও নতুন করে ঠিক করিনী।ঠিকাদারকে জানাই এখানে একটি নতুন কালভাট দিতে না দিয়ে রাস্তার কাজ তৈরি করে যাছে অনিয়ম কাজ এই রাস্তার প্রতি দৈনিক নোওয়া পাড়া কয়বার সাংবাদ প্রকাশ হয়েছে। বাবুরহাটের সামনে ২০০ গজ রাস্তা তাই শুধু বালি দিয়ে কোনো কাজ না করে রেখেছে ঠিকাদারা এতে যাওয়া আশা মানুষের অশুবিদা হয়ছে অভিযোগ জানা যাই এলাকা বাসাী আহবান আর কত দিন ফেলে রাখবে ঠিকাদারা এই রাস্তা।