বরিশালে বৃদ্ধার বয়স্ক ভাতা মেম্বর কর্তৃক আত্মসাৎ

304
অমিয় বিশ্বাস(অমল), জুনিয়র রিপোর্টার
বরিশাল জেলার, উজিরপুর উপজেলার,১নং সাতলা ইউনিয়নের ইউপি সদস্য  জোহন বাড়ৈ (বিশু) এর বিরুদ্ধে বৃদ্ধার বয়স্ক ভাতার টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই বৃদ্ধা ১ নং সাতলা ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের  রাজাপুর গ্রামের প্রায়ত মধু বিশ্বাসের স্ত্রী ফুলমালা বিশ্বাস (৮০) ।
ভুক্তভোগী সুত্রে জানাগেছে গত ২০১৭ সালের জুলাই মাসে বয়স্ক ভাতা ভোগী হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হয়ে ডিসেম্বর ২০১৯ পর্যন্ত প্রতি মাসে ৫০০ শত টাকা হিসেবে ২৪ মাসে মোট ১৫০০০, হাজার টাকা।  ভুক্তভুগী যানান ২৪ ফ্রেব্রুয়ারি হারতা কৃষি ব্যাংক থেকে উত্তোলন করার জন্য সই সাক্ষর নিয়ে ব্যাংক কাউন্টার থেকে মেম্বার জোহন বাড়ৈ( বিশু)  টাকা হাতে নিয়ে  দুই ভাগ করে এক ভাগ আমাকে দেয়, দিয়ে বাড়ি যেতে বলে বাকি টাকার কথা জানতে চাইলে (মেম্বর)জোহন বাড়ৈ ( বিশু) বলেন বাকি টাকা অন্য আরেক জনকে দিতে হবে ।
কিন্তু আমি (ফুলমালা) টাকা গুনতে না জানায় স্থানীয় কয়েকজনের উপস্থিতিতে টাকা গুনতে দিলে তারা ৭ হাজার ৫০০ শত টাকা গুনে দেয় ।
পরবর্তীতে বিষয়টি জানাজানি হলে বিশু (মেম্বার) আমাকে রাতের ঘুম থেকে জাগিয়ে সাদা কাগজে টিপ সহি নিয়ে বলে বাকি টাকা আগের নমিনিকে দিতে হবে । বিষয়টি জেলা সমাজসেবা কর্মকর্তার কাছে  লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে, বৃদ্ধা ফুলমাল জানান বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি না করার জন্য বিশু মেম্বার বিভিন্ন ভাবে আমার পরিবারের সদস্যদের উপর চাপ প্রয়োগ করে ।
এ- বিষয়ে ৪ নং ইউপি সদস্য জোহান বাড়ৈ (বিশু) টাকা আত্মসাতের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন ওই মহিলা (ফুলমালা) আগের ভাতা ভোগীর নমিনির সাথে টাকা ভাগাভাগি করে নিয়েছে বলে শুনেছি ।
 ১ং সাতলা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আঃ খালেক আজাদ তিনি অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা ধিন থাকায় তার সাথে যোগাযোগ করা যায়নি।
উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মোঃ আবুল কালাম অভিযোগের  বিষয়টি শুনেছেন লিখিত অভিযোগ প্রাপ্তি সাপেক্ষে পরবর্তীতে ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রণতি বিশ্বাস বলেন,  লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থাগ্রহণ করা হবে।