যুব মহিলা লীগের নেত্রীদের বিষয়ে খোঁজ নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

109

পাপিয়াকাণ্ডের পর বেশ বিব্রত অবস্থায় রয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন আওয়ামী যুব মহিলা লীগ। ফলে নড়েচড়ে বসেছেন সংগঠনটির শীর্ষ নেতৃত্ব। এরইমধ্যে পাপিয়াকাণ্ডের পর বেশ বিব্রত অবস্থায় রয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন আওয়ামী যুব মহিলা লীগ।

বুধবার যুব মহিলা লীগের সভাপতি নাজমা আক্তার ও সাধারণ সম্পাদক অপু উকিল প্রধানমন্ত্রীর সাথে দেখা করতে গেলে তিনি এ নির্দেশ দেন।

নাজমা আক্তার বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। তিনি আমাদের কিছু নির্দেশনা দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, সারা দেশে যুব মহিলা লীগের নেতাকর্মীদের খোঁজ নিতে। যারা অপকর্মে জড়িত তা খুঁজে বের করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বলেছেন।

মাদক-অস্ত্র চোরাচালান, জমি দখল ও হোটেলে নারীদের দিয়ে যৌন বাণিজ্যসহ বিভিন্ন অপকর্মের অভিযোগে শনিবার ঢাকা বিমানবন্দর থেকে পাপিয়া, তার স্বামী মফিজুর রহমান সুমন ওরফে সুমন চৌধুরী এবং তাদের দুই সহযোগীকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।

র‌্যাবের পক্ষ থেকে বলা হয়, অত্যন্ত বিলাসবহুল জীবনযাপনে অভ্যস্ত পাপিয়া গুলশানের ওয়েস্টিন হোটেলের ‘প্রেসিডেনশিয়াল স্যুইট’ ভাড়া নিয়ে ‘অসামাজিক কার্যকলাপ’ চালিয়ে যে আয় করতেন, তা দিয়ে হোটেলে বিল দিতেন কোটি টাকার উপরে।

গ্রেপ্তার হওয়ার পর পাপিয়াকে এরইমধ্যে বহিষ্কার করেছে যুব মহিলা লীগ।