ফুলতলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা ভাইরাস রোগিদের জন্য প্রস্তুত বেডে বিড়াল ঘুমিয়ে

267

এখন পর্যন্ত আমাদের দেশের কোনো জেলাতেই করোনা ভাইরাস রোগী বা এ রোগের লক্ষণ দেখা যায়নি। তারপরও পূর্ব প্রস্তুতি হিসেবে দেশের প্রতিটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দুইটি আইসোলেশন কর্নার (কেবিন) বা শর্য্যা প্রস্তুত রাখা হয়েছে। যারই অংশ হিসেবে ফুলতলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা ভাইরাস  রোগিদের জন্য পূর্ব প্রস্তুতি হিসেবে দুটি বেড প্রস্তুত করে রাখা হয়েছে। তবে এত বড় স্পর্শকাতর রোগির বেডে বিড়ালের বসবাস। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের এ বিষয়  তেমন কোন মাথা ব্যাথা নেই। পুরো হাসপাতাল জুড়ে যেন পশুর অভয়ারণ্য।

ফুলতলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অভ্যান্তরে কুকুরের বসবাস

সরেজমিনে শনিবার এ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গেলে দেখা মিলে হাসপাতাল অভ্যান্তরে কুকুর ঘুড়ে বেড়াচ্ছে। হাসপাতালের পুরুষ বেডের পাশে করোনা ভাইরাস জনিত রোগিদের জন্য দুটি বেড রাখা হয়েছে। সেখানে একটি বেডের উপর ঘুমিয়ে আছে বিড়াল। যেখানে সারা দেশ করোনা ভাইরাস এর জন্য আতংকিত । প্রতিদিনই সরকারের পক্ষ থেকে বিভিন্ন সতর্কবার্তা, সভা, সেমিনার হচ্ছে । অথচ সেই করোনা ভাইরাস এর জন্য প্রস্তুতকৃত বেডে যখন বিড়াল ঘুমিয়ে থাকে , সেখানে করোনা ভাইরাস এর আগে সংক্রামক ব্যাধি নিশ্চিত । এখানেই শেষ নয়। হাসপাতালের নিচতলায় সিড়ির পাশে জমে আছে ময়লা আবর্জনা। এ আবর্জনা থেকে দূর্ঘন্ধ ছড়িয়ে পড়ছে।

ফলে হাসপাতালে চিকিৎসা প্রত্যাশীরা টিকিট কাউন্টারে আসতে গেলে নাক মুখ ঢেকে আসতে হয় তাদের। পুরো হাসপাতাল জুড়ে পরিচ্ছন্নতার অভাব বলে দেয় চিকিৎসা সেবা কতটুুকু পরিস্কার। স্থানীয়রা জানান, কর্তৃপক্ষের সঠিক তদরকির অভাবে হাসপাতালে কুকুর বিড়ালের আশ্রয়স্থল হয়েছে। এছাড়া ময়লা আর্বজনার স্তুপ হাসপাতালে আগত রোগিদের আরো রোগি বানিয়ে ফেলছে। সুতরাং অচীরেই একটি পরিচ্ছন্ন নির্মল হাসপাতাল  গড়ে তুলতে খুলনা সিভিল সার্জনের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন স্থানীয়রা।