খুলনা জেলা ‍ডিবির অভিযানে ফেন্সিডিলসহ আটক ৩

156

খুলনা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ জনাব তোফায়েল আহমেদ এর নেতৃত্বে পুলিশ পরিদর্শক (নিঃ) সেখ কনি মিয়া, এসআই (নিঃ) মুক্ত রায় চৌধুরী, পিপিএম, সঙ্গীয় ফোর্স সহ বিশেষ অভিযান পরিচালনা কালে গত ৭ ফেব্রুয়ারি  গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে ফুলতলা থানাধীন যুগ্নিপাশা শেষ সীমানা চার রাস্তার মোড় সংলগ্ন স্পিড ব্রেকারের সন্নিকটে পৌছালে উক্ত প্রাইভেটকার দুইটি তল্লাশির উদ্দেশ্যে সিগনাল দিলে ডিবি পুলিশের সিগনাল উপেক্ষা করে পালানোর সময় সরকারী পিকআপ এর মাধ্যমে বেরিকেট সৃষ্টি করে ঢাকা মেট্রো খ-১২-৬৯৭৫ প্রাইভেটকারটি আটক করলেও আর একটি প্রাইভেটকার বেপরোয়া গতিতে চালিয়ে খুলনার দিকে চলে যায়।

আটককৃত প্রাইভেটকারটি তল্লাশি করে উক্ত প্রাইভেট কার এর পিছনে বসা দুই জনের পায়েরকাছে দুইটি ব্যাগে থাকা ৫০ বোতল করে দুইটি ব্যাগে সর্বমোট ১০০ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়। ঘটনার সাথে জড়িত আসামি মাদক ব্যবাসায়ী ১। মোঃ সোহেল শেখ(৩৬) পিতা-এনায়েত হোসেন @ এনাজউদ্দিন শেখ, সাং-হাতারপাড়া, থানা-শ্রীনগর, জেলা-মুন্সিগঞ্জ, ২। শেখ রানা(৩২) পিতা-মোঃ ওমর আলী শেখ, সাং-রায়েতকান্দি, থানা-কাশিয়ানী, জেলা-গোপালগঞ্জ, এবং প্রাইভেটকার চালক ৩। মাহামুদ হাসান (৪৪) পিতা-মৃত কাঞ্চন আলী, সাং-নবাবপুর, থানা-রামপাল, জেলা-বাগেরহাটদের গ্রেফতার করা হয়। আসামিরা দীর্ঘদিন যাবৎ খুলনা শহরে অবস্থান করে ভারতীয় সীমান্ত এলাকা থেকে ফেন্সিডিল এর চালান এনে দেশের বিভিন্ন স্থানে মাদক ব্যবসায়ীদের নিকট সরবরাহ করে আসছিল।

এ সংক্রান্তে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ইনচার্জ তোফায়েল আহমেদ বাদী হয়ে ফুলতলা থানায় মাদক আইনে মামলা দায়ের করেন। ঘটনাস্থল থেকে পলাতক প্রাইভেটকারে থাকা মাদকদ্রব্য উদ্ধার ও সহযোগী মাদকব্যবসায়ী গ্রেফতার তথা মামলার সুষ্টু তদন্তের স্বাথে মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই মুক্ত রায় চৌধুরী পিপিএম আসামিদের ০৫ দিনের পুলিশ রিমান্ডের আবেদন সহ আদালতে প্রেরণ করেছেন।