ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স থাকতেও নেই, সংস্কারের দাবি এলাকাবাসীর

114
রনি মজুমদার,  স্টাফ রিপোর্টার
শাহজাদপুরের বাঘাবাড়ী বন্দর সংলগ্ন করতোয়া এবং লোচনা নদীর অববাহিকায় অবস্থিত  রুপবাটী ইউনিয়ন। এই নদীর দুইপাড়ের ২১ টি গ্রাম বিভক্ত হয়েছে চারটি  অংশে।  প্রায় ৫২ হাজার জনসংখ্যার এই ইউনিয়নের নাগরিক সেবা নিতে গেলে হতে হয় হয়রানীর শিকার।   cintv24 এর উন্নয়নের পথে বাংলাদেশ অনুষ্ঠানের টীম সেখানে পৌঁছলে সাধারণ জনগনের কাছ থেকে শোনা যায় তাদের দুর্ভোগের কথা।  প্রায় এক যুগ আগে ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স হলেও সেখানে নেই এর কোন কার্যক্রম। ইউনিয়নের আহমেদপুরে ইউনিয়ন পরিষদ ভবনে গিয়ে দেখা যায় এর বেহাল দশা।  ভবনের কোন কিছুই ঠিক নেই,  ভবনের কোন সীমানা প্রাচীর না থাকায় এখন পরিনত হয়েছে গো চারণ ভূমিতে।  তাছাড়া ভবনটি পরিনত হয়েছে ভূতুরে ভবনে। সরেজমিনে এলাকাবাসী দাবি জানায় সেখানকার কার্যক্রম চালু করতে।

এ বিষয়ে স্থানীয় ইউ পি চেয়ারম্যান  মোঃ রফিকুল ইসলাম শিকদার cintv24 কে জানান, ২০০৫ সালে এই ভবন তার আমলেই তৈরি করা হয়েছে। কিন্তু সেখানে যাতায়াত ব্যবস্থা না থাকায় অফিস করাটা অসম্ভব হয়ে পরে। পরবর্তিতে ২০১১ সালের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পরিবর্তন হলে তিনি সেখানে অফিস করেননি যার কারনে নষ্ট হয়ে যায়।

  ২০১৬ সালে আবার আমি নৌকা প্রতীক নিয়ে  চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে সেখানে গিয়ে দেখি এই বেহাল দশা।  সেই এলাকায় এবং এই ইউনিয়নের বেশীর ভাগ অংশ বছরের ৬ মাস পানিতে নিমজ্জিত থাকার কারনে সারা ইউনিয়ন ব্যাপি সাবমারসিবল রাস্তা  নির্মান করি।  এই ভবনে বসার জন্য  পরিবেশ না থাকার জন্য ভবন সংস্কারের বিষয়ে আমি ডিসি মহোদয়ের সাথে আলাপ করি।  তিনি আমাকে অস্থায়ী কার্যালয়ে বসার জন্য অনুমতি দেন এবং অতি দ্রুত সেটা সংস্কারের দাবি জানাই। কিন্তু দুঃখের বিষয় এখনো সে বিষয়ে কোন সুরাহা হয় নি যার কারনে গ্রাম আদালত সহ নাগরিক সেবা দিতে হিমসিম খেতে হচ্ছে।  তাছাড়া আহম্মেদপুর এবং হুড়োসাগরে দুটি ব্রীজের কথা অনেকবার বললেও মাপজোখ পর্যন্তই সীমাবদ্ধ। তাই সরকার এর সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এবং মাননীয় সাংসদ এর নিকট আমার এই এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে দাবি আমাদের এই সমস্যার সমাধান করুন।  আমরা যাতে অন্তত আগামী দিনে সোনার বাংলার অংশীদার হতে পারি, আমরা জনপ্রতিনিধি হিসেবে যাতে এই নৌকার ইজ্জত রাখতে পারি তার জন্য এই অবহেলিত জনগনের নাগরিক সেবা পৌঁছানোর জন্য আমাদের এই ভবন সংস্কারের দ্রুত ব্যবস্থার দাবি জানাই।