প্রতীক পেয়েই নির্বাচনের ব্যস্ততায় আহাম্মদপুর ইউ-পি প্রার্থীরা

187
ভোলা জেলার চরফ্যাশন উপজেলার ২১ নং আহাম্মদপুর ইউনিয়নে চলছে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদের সাধারণ নির্বাচন। এই নির্বাচন কে ঘিরে চলছে প্রার্থীদের প্রচার প্রচারণা। এলাকার প্রতিটি চায়ের দোকানে চলছে জনগণের চুল ছেড়া বিশ্লেষণ। নির্বাচনের সার্বিক বিষয় নিয়ে সি আই এন টিভি ২৪ এর প্রতিনিধিদের সাথে কথা বলেছেন বিভিন্ন প্রার্থীরাঃ
৫নং ওয়ার্ডে প্রতিদ্বন্দীতা করছেন দুইজন, একজন মোঃ সালাউদ্দিন মাতুব্বর যিনি মোরগ প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তিনি বলেন আমি একজন ব্যবসায়ী, তাই দীর্ঘদিন ধরে জনগণের সেবা করে আসছি। তাই জনগণ আমাকে নির্বাচন করার উৎসাহ দিয়েছে। এবং আমি আমার সারাজীবন জনগণের সেবা করে যেতে চাই।
৫নং ওয়ার্ডের অন্যজন মোঃ  রিপন হাওলাদার তিনি প্রতিদ্বন্দীতা করছেন ফুটবল প্রতীক নিয়ে। তিনি বলেন আমি আমার এলাকার জনগণ এবং আমার মুরুব্বিদের সাথে নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি। আমার দৃঢ় বিশ্বাস জনগণ  আমাকে তাদের রায় দিবে এবং তাদের সুখে-দুঃখে কাজ করার সুযোগ দিবে।
৬নং ওয়ার্ডে নুরুল ইসলাম প্রতিদ্বন্দীতা করছেন  ফুটবল প্রতীক নিয়ে। তিনি আশাবাদী যে তার ওয়ার্ডের জনগণ তাকে বিপুল ভোটে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করবে এবং তিনি বলেন নির্বাচিত হতে পারলে জনগণকে একটি ডিজিটাল ওয়ার্ড উপহার দিবেন।
৭নং ওয়ার্ডে মোঃ নূরনবী প্রতিদ্বন্দীতা করছেন মোরগ প্রতীক নিয়ে। তিনি বলেন বিগত দিনে জনগণের সুখে-দুঃখে পাশে ছিলাম, তাই এখন সময় এসেছে জনগণ আমাকে মোরগ প্রতীকে রায় দিবে আমি আশাবাদী ।
৮নং ওয়ার্ডে মোঃ রুহুল আমীন মোরগ প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তিনি বলেন আমি এই এলাকার জনগণের জন্য একজন নিবেদিত প্রাণ। তাই আমার এলাকার জনগণ আমাকে ভালোবেসে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করিয়েছে। জনগণ যদি আমাকে নির্বাচিত করেন তাহলে জনগণের উন্নয়নে কাজ করে যাব।
আগামী ৩০শে ডিসেম্বর ভোট গ্রহণের দিন ধার্য্য করেছে নির্বাচন কমিশন। কিছু প্রার্থী আশঙ্কা করছেন তাদের সেন্টার গুলো ঝুঁকিপূর্ণ, তাই তারা চায় নির্বাচনের দিন যেন সেন্টারগুলো কঠোর নিরাপত্তা দেওয়া হয়। জনগণের সাথে কথা বলে যানা যায় সুষ্ঠু অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচন চায় আহাম্মদপুর ইউনিয়ন বাসী