সড়কে ভ্রাম্যমান আদালতের তৎপরতা, আপাতত সহনীয় মাত্রায় জরিমানা

150

সড়ক পরিবহন আইন বাস্তবায়নে রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে ভ্রাম্যমান আদালতের তৎপরতা শুরু হয়েছে। গাড়ির ফিটনেস না থাকা, অতিরিক্ত ভাড়া আদায় ও অতিরিক্ত যাত্রী বহনসহ বিভিন্ন অপরাধে আপাতত সহনীয় মাত্রায় জরিমানা করা হচ্ছে।
মঙ্গলবার রাজধানীর কয়েকটি মোড়ে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) ভ্রাম্যমান আদালতকে তৎপর দেখা গেছে। ভ্রাম্যমান আদালতের চারটি টিম কাজ করছে।

বিআরটিএ চেয়ারম্যান ড. কামরুল ইসলাম জানান, সড়কে বিভিন্ন অপরাধে সহনীয় মাত্রায় জরিমানা আদায় করার কাজ শুরু হয়েছে। তবে একই অপরাধের পুনরাবৃত্তি হলে জরিমানার পরিমাণ বাড়তে পারে। তিনি জানান, প্রথম দিকে গাড়ির ফিটনেস না থাকা, চালকের লাইসেন্স না থাকা, যানবাহন রংচটা হওয়া, অতিরিক্ত ভাড়া আদায়, অতিরিক্ত যাত্রী বহনের মত ঘটনায় মামলা দিতে শুরু করেছেন ভ্রাম্যমান আদালত।

একটি সূত্র জানিয়েছে, সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের নিজে নতুন আইনের বাস্তবায়ন দেখতে রাস্তায় নামতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তার শারীরিক অবস্থা বিবেচনা করে প্রধানমন্ত্রী তা করতে নিষেধ করেছেন। তবে মন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ীই কাজ করছে বিআরটিএ।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) মফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, আইনটি ধীরে ধীরে বাস্তবায়নের দিকে যাচ্ছে। হঠাৎ করে একেবারে না করে ধীরে ধীরে প্রয়োগ হচ্ছে।

এখনও ক্যাম্পেইন চালিয়ে যাচ্ছি। নতুন আইনে বড় আকারে মামলা হচ্ছে। এর জন্য সময় লাগবে। জরিমানা সহনীয় মাত্রায় করা হচ্ছে।

এদিকে বিআরটিএর তৎপরতার কারণে গতকাল সোমবার ও আজ মঙ্গলবার রাজধানীতে গণপরিবহনের সংখ্যা কিছুটা কম দেখা গেছে। ফিটনেস না থাকায় অনেক বাস রাজধানীর পথে নামাননি মালিকরা। ফলে দেখা দিয়েছে পরিবহন সংকট। রাজধানীর বিভিন্ন পয়েন্টে বাসের অপেক্ষায় থাকতে দেখা গেছে যাত্রীদের। রাজধানীর গাবতলী থেকে পল্টনগামী কিছু বাস থেকে যাত্রীদের কল্যাণপুরে এসেই নামিয়ে দেয়ার ঘটনা ঘটেছে।

                                                                                                   সূত্র : মানবজমিন।