খুলনার সাংসদ জুয়েল নিজের বেতনের টাকা দান করলেন মসজিদ মন্দিরে

186
মোঃ আল আমিন খান, খুলনা ব্যুরো   
বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ টায় খুলনা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মলন করে সেখ সালাহ্ উদ্দিন জুয়েল বলেন, সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর, শেখ হাসিনা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমােদন, শামছুর রহমান রােডে ১৫ তলা বিশিষ্ট বিভাগীয় কনভেনশন সেন্টার নির্মান (কাজ চলমান),  রূপসায় ১০০০ আসন বিশিষ্ট বঙ্গবন্ধু কনভেশন সেন্টার নির্মানের অনুমােদন, শেখ রাসেল আইসিটিপার্ক নির্মানে ৭৭ কোটি টাকা বরাদ্দ, শিশু হাসপাতালকে আধুনিকায়ন করতে ১৫ কোটি টাকা বরাদ্দ, বায়তুল আমান, দ্বীলওয়ালি এবং নিরালা কবরখানা জামে মসজিদে মধুমতি ব্যাংকের মাধ্যমে ১৩ লাখ টাকা অনুদান, স্কুল কলেজ, মসজিদ, মাদ্রাসা, মন্দির, গীর্জাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে প্রায় ৫৩ লাখ টাকা অনুদান প্রদান এবং ৫১ লাখ টাকার সােলার সিস্টেম বাদ বরাদ্দের অনুমােদন দেয়া হয়েছে, বঙ্গবন্ধুর ভ্রাতুষ্পুত্র সেখ সালাহ্ উদ্দিন জুয়েল খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর গত ১০ মাসের বেতন-ভাতা মসজিদ-মন্দিরে ভাগ করে দিয়েছেন। এছাড়াও খুলনাঞ্চলের উন্নয়নে বৈপ্লবিক পরিবর্তন এনেছেন। খুলনা নগর উন্নয়নে অর্থ আনা হয়েছে। যা দ্বারা খুলনাকে তিলােত্তমা নগরীতে পরিণত করা যাবে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশ থেকে দুর্ণীতি, মাদক ব্যবসায়ী, ভূমিদস্যুতা পছন্দ করে না। আমরা সেদিকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে কাজ কর যাচ্ছি। আমি আপনাদের সহযােগিতা নিয়ে নগরীকে তিলােত্তমা নগরীতে পরিণত করতে চাই। সেজন্যে বর্তমান মেয়রের নেতৃত্বে নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসনে সকল অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। নগরবাসীর স্বার্থেই পূজার পরেই রিকসা থেকে মােটর অপসারণ কার্যক্রম শুরু হবে। যানজট নিরসনে ইজিবাইকে লাইসেন্স দিয়ে নিয়ন্ত্রন করা হবে। যার কার্যক্রম ইতােমর্ধে শুরু হয়েছে। তিনি আরো বলেন, কাষ্টমঘাট থেকে ফুলতলা পর্যন্ত যশাের রােডকেডিভাইডার সহ চার লেনে উন্নীত করা হবে। ইনশাল্লাহ আগামী সভায় এর অনুমােদন নেয়া হবে। ভৈরব নদীর পাড়কে শহররক্ষা বাধ নির্মানসহ দৃষ্টি নন্দন পার্কের সদৃশ্য করা হবে। যেখানে নগরবাসি হাটাচলা করে নির্মল বায়ু সেবন করতে পারবে। এছাড়া খুলনায় একটি মেরিন একাডেমি নির্মানের পরিকল্পনায় আমাদের রয়েছে। ইনশাল্লাহ অল্প সময়ের মধ্যেই এটি করা হবে। নগরীর সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে সকল ক্লাস করিয়ে আধুনিক শিক্ষার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিল, খুলনা সিটি কর্পোরেশনের (কেসিসি) মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, খুলনা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজান, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য এস এম কামাল হোসেনসহ খুলনার বিভিন্ন পর্যায়ের আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা এবং বিভিন্ন  প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকসহ মান্য গন্য ব্যক্তি বগ উপস্থিত ছিলেন।