সাতক্ষীরায় মুক্তিযোদ্ধা সনদ জালিয়াতি, বহুল তবিয়তে একই পরিবারের তিন সরকারি চাকরিজীবি

161

।।বদরুজ্জামান খোকা, সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধি।।
সাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলার ধানদিয়া ইউনিয়নের কৃঞ্চনগর গ্রামের মৃত: ললিত মোহন সাহার দুইপুত্র ও এক ভাইপো স্কুলশিক্ষক ও কৃষি কর্মকর্তা হিসাবে মুক্তিযোদ্ধা সনদ (জাল) প্রদর্শন করে মুক্তিযোদ্ধা কোটায় বিগত দশ বছর যাবৎ চাকুরী করিয়া আসিতেছে বহাল তবিয়তে।
জানা যায়, সাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলার কৃঞ্চনগর গ্রামের মৃত: ললিত মোহন সাহা পিতা: মৃত: বসন্ত সাহা’র নামে একটি মুক্তিযোদ্ধা সনদ (জাল) তৈরী করে মুক্তিযোদ্ধা কোটায় একই পরিবারের তিন সদস্য অভিনব কায়দায় সকল সরকারী দপ্তরকে ম্যানেজ করে সরকারী চাকুরীতে বহাল আছেন। ললিত মোহন সাহার দুই পুত্র, বীরেন্দ্র নাথ সাহা, সহ: শিক্ষক, সরুলিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, প্রতাপ কুমার সাহা, সহ: শিক্ষক, নগরঘাটা (কালীবাড়ী) সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, তালা উপজেলা ও ভাইপো সুমন কুমার সাহা, উপ-সহকারী কৃষি অফিসার পদে চাকুরী করছে। বিগত দশ বছর যাবৎ এদের বিরুদ্ধে কোন সুনির্দিষ্ট অভিযোগ না হওয়ায় তারা স্ব-পদে বহাল তবিয়তে কাজ করে যাচ্ছেন, মুক্তিযোদ্ধা সনদ নং-১৪৮৬০, স্মারক নং-মুবিম/সা/খুলনা/প্র-৩/৪৫/২০০২/৩৯০ ।
আইন সহায়তা কেন্দ্র আসক এর খুলনা বিভাগীয় কার্যালয়ের অনুসন্ধানে জানা যায়, উক্ত ‘সনদ’ এর প্রকৃত তথ্য ভিন্ন। তারা অন্যায়ভাবে প্রতারনা ও জালিয়াতির মাধ্যমে সংগৃহিত মুক্তিযোদ্ধা সনদ ব্যবহার করে সরকারী সুযোগ সুবিধা ভোগ করে আসছেন।
এবিষয়ে সাতক্ষীরা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রুহুল আমীন জানান, অভিযোগের বিষয়টি থানা শিক্ষা কর্মকর্তাকে তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, রিপোর্ট এখনও হাতে পাওয়া যায়নি। এরপর তালা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মুস্তাফিজুর রহমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সনদ যাচাই-বাছাই এর কাজ আমার না। নিয়োগকর্তাই সনদ এর যাচাই-বাছাই করে থাকেন।
উক্ত বিষয়ে আসক বিভাগীয় সম্পাদক শাহাদত হোসেন শাওন বলেন, এ বিষয়ে আমরা আরও বিস্তারিত অনুসন্ধান শেষে সংশ্লিষ্ট উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের দৃষ্টি আকর্ষন ও কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য প্রতিবেদন তৈরী করিয়া প্রেরন করিব।