প্রেমের টানে স্বামী সংসার ছেড়ে জার্মানির কাসুমী সিউর তরুণী খুলনাতে  

281
মোঃ আল আমিন খান, খুলনা ব্যুরো  
প্রেমের টানে স্বামী-সংসার ছেড়ে সুদূর জার্মানি থেকে সাত সমুদ্র পাড়ি দিয়ে খুলনার প্রত্যন্ত গ্রামে প্রেমিকের বাড়ি এসে উঠেছেন কাসুমী সিউর। ফেসবুকে বন্ধুত্বের সূত্রে আট বছরের ছোট এবং ভিন্ন সংস্কৃতিতে বেড়ে ওঠা আসাদ মোড়লের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন তিনি। এর জন্য কাসুমী আগের স্বামী, সংসার ত্যাগ করেছেন। আসাদের প্রেমে কাসুমী এতটাই মুগ্ধ যে, নিজ দেশ, চিরচেনা পরিবেশ, আত্মীয়-স্বজন ছেড়ে স্বামীকে ডির্ভোস দিয়ে ভিন্ন পরিবেশ এবং সংস্কৃতির বাংলাদেশে এসেছেন।
এখন খুলনার খানজাহান আলী থানার যোগিপোল গ্রামে স্বামী আসাদ মোড়লের বাড়িতে অবস্থান করছেন। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে উৎসুক মানুষ নব দম্পতিকে দেখার জন্য প্রতিনিয়ত ভিড় করছেন। জানাচ্ছেন শুভেচ্ছাও। এতে অভিভূত কাসুমী। খানজাহান আলী থানাধীন যোগিপোল ৭নং ওয়ার্ডের ইব্রাহিম মোড়লের ছেলে মো. আসাদ মোড়লের (৩৫) সঙ্গে দুই বছর আগে জার্মানির এ্যাসটিট ক্রিস্টিয়াল কাসুমী সিউরের (৪৩) ফেসবুকে বন্ধুত্ব হয়।
এক পর্যায় প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। কাসুমী প্রেমের সম্পর্ক বাস্তবে রূপ দিতে গত ১০ জুন ঢাকায় আসেন। ১১ জুন খুলনায় এসে হোটেলে ওঠেন। সেখানে দুই জনের প্রথম দেখা হয়। ১২ জুন কাসুমী খুলনা নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে খ্রিস্টান ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম গ্রহণ করেন এবং ১৩ জুন আসাদের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।
একেই বলে সত্যিকারের প্রেম ভালোবাসা। কাসুমী বলেন, তাদের সম্পর্ক দীর্ঘদিনের। সেই ভালোলাগা থেকে তিনি এ দেশে এসে আসাদকে দেখে মুগ্ধ হয়েছেন। তাকে বিয়ে করেছেন। এখন তারা সুখী। আসাদ সহমত পোষণ করে বলেন, কাসুমীকে জীবন সঙ্গী করতে পেরে তিনিও খুশী। আসাদের বাবা ইব্রাহিম মোড়ল বলেন, ছেলে যাকে নিয়ে সুখী হবে, তাতে তাদের আপত্তি নেই। কারন প্রেম ভালোবাসা জাত ধম বণ দেখে হয় না এটা সম্পূর্ণ মন থেকে আসে। তবে তিনি কখনো ভাবতে পারেননি, ছেলে কোনো বিদেশিনীকে বিয়ে করবে।