ঈদের ছুটির পর সূচকের উত্থানে পুঁজিবাজার

238

অনিলা জাহান, অর্থনৈতিক ডেক্স, সিআইএনটিভি২৪

পবিত্র ঈদুল ফিতরের ছুটির পর গত রোববার থেকে কার্যক্রম শুরু হয়েছে দেশের দুই পুঁজিবাজারে। ফলে ৯ জুন রোববার থেকে সূচকের উত্থানে লেনদেন শেষ হয়েছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই)।

ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স বেড়েছে ২৫ পয়েন্ট। অবস্থান করছে ৫ হাজার ৪০২ পয়েন্টে। অন্যদিকে, সিএসইতে সার্বিক সূচক সিএএসপিআই বেড়েছে ১১৮ পয়েন্ট।

ঈদুল ফিতর উপলক্ষে সরকারি ছুটি ছিল ৪ জুন থেকে ৮ জুন। তা ছাড়া শবে কদরের কারণে ২ জুন ছুটি ছিল। এর আগে ৩১ মে ও ১ জুন শুক্র ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটি ছিল। তবে এর মধ্যে ৩ জুন কোনো বন্ধ না থাকায় ডিএসইর পর্ষদ ওই দিন পুঁজিবাজার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়। সব মিলিয়ে টানা নয় দিন বন্ধ থাকার পর আজ খুলেছে পুঁজিবাজার।

ডিএসইতে আজ সোমবার শুরু থেকেই একটা ইতিবাচক প্রবণতা ছিল। বেড়েছে বেশির ভাগ কোম্পানির শেয়ারের দর। তবে লেনদেন কমেছে। আজ মোট লেনদেনের পরিমাণ ৩০৪ কোটি ৬৬ লাখ টাকা। গত কার্যদিবস (৩০ মে) লেনদেন হয় ৪২৫ কোটি টাকা। গত কার্যদিবস ডিএসইএক্স সূচক বৃদ্ধি পায় ২৩ পয়েন্ট।

আজ হাতবদল হওয়া শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৭১টির। কমেছে ১২৫টির। অপরিবর্তিত আছে ৪৮টির।

ডিএসইতে আজ লেনদেনের শীর্ষে থাকা কোম্পানিগুলো হলো ন্যাশনাল লাইফ ইনস্যুরেন্স, ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড, ইস্টার্ন হাউজিং লিমিটেড, ইস্টার্ন কেবলস, নিউ লাইন ক্লোদিং লিমিটেড, জেএমআই সিরিঞ্জেস, বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবল কোম্পানি লিমিটেড, ফাস ফাইন্যান্স, ফরচুন ও খুলনা পাওয়া কোম্পানি লিমিটেড।

ডিএসইতে দর বাড়ার শীর্ষে থাকা কোম্পানিগুলো হলো ইস্টার্ন হাউজিং লিমিটেড, প্রাইম ফাইন্যান্স ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড, ন্যাশনাল লাইফ ইনস্যুরেন্স, প্রগতি লাইফ ইনস্যুরেন্স, এসইএমএল এফবিএলএসএল গ্রোথ ফান্ড, ইউনিয়ন ক্যাপিটাল, মাইডাস ফাইন্যান্স, ন্যাশনাল হাউজিং ফাইন্যান্স, সিনোবাংলা ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড ও ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেড।

ডিএসইতে দর কমার শীর্ষে থাকা কোম্পানিগুলো হলো মার্কেন্টাইল ব্যাংক লিমিটেড, স্টান্ডার্ড ব্যাংক লিমিটেড, এনসিসি ব্যাংক লিমিটেড, শাহজালাল ব্যাংক লিমিটেড, এনএলআই ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড, এমারেল্ড অয়েল, নিউ লাইন, সোনার বাংলা ইনস্যুরেন্স, গ্রিনডেল্টা ইনস্যুরেন্স লিমিটেড ও কে অ্যান্ড কিউ।