রাঘদীকে মডেল ইউনিয়নে হিসেবে গড়তে চাই : মোঃ আলমগীর হোসেন

225

 জুয়েল ডি সানি /  আরিফুর রহমান সেতু

পৃথিবীর তিন ভাগ পানি, এক ভাগ স্থল, আর এর মধ্যে সৃষ্টিকর্তার অসংখ্য সৃষ্টি বিচরন করছে। ঐ সমস্ত সৃষ্টির মধ্যে মানুষকে সর্ব শ্রেষ্ঠ জীব হিসেবে সৃষ্টি করেছেন। তাই মানুষ সৃষ্টির সেরা জীব। কারন মানুষ অন্যান্য প্রানী বা জীবজন্তু থেকে আলাদা। মানুষের মধ্যে রয়েছে হিতাহিত জ্ঞান, বিবেক,চিন্তা,উদ্ভাবনী ও স্বতন্ত্র ভাবে চলাচলের শক্তি ইত্যাদি।এই মানুষ জাতি সৃষ্টির আদি থেকেই সমস্ত মানুষ পৃথিবীতে সমাজ উন্নয়ন বা সেবামুলক কাজে নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছেন অকাতরে। তারাই আজ বিশ্ব বাসীর কাছে চির স্মরণীয় বরণীয় হয়ে আছেন। কেউ বিশ্ব ব্যাপী মানব সেবামূলক কাজ করে স্মরণীয় হয়েছেন আবার কেউ দেশের জন্য সমাজসেবামুলক কাজ করে স্মরণীয় হয়েছেন। এই পৃথিবীতে মানুষ জন্মগ্রহণ করে আবার ইহলোক ত্যাগ করে পরপারে চলে যায়। ইহলোক ভবলীলা যখন সাঙ্গ হয়ে যায় তখন পৃথিবীতে তার কিছুই করার থাকে না। যতক্ষণ মানুষ ব্যক্তি বা সমাজের সেবামূলক কাজ করতে পারে ততক্ষণই মানুষ তাকে মনে রাখে। এবং সেটাই তাকে দুনিয়াতে অমর করে রাখে।

তেমনি দেশ ও জাতির জন্য মানবসেবামুলক কাজ করে যাচ্ছেন মোঃ আলমগীর হোসেন। তিনি বর্তমানে এই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তার সাথে একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি cintv24 কে বলেন, ছাত্রজীবন থেকেই আমার সাধারন মানুষের জন্য কিছু করার প্রত্যাশা ছিল। বিভিন্ন সময়ে যখন দেখতাম সাধারন খেটে খাওয়া মানুষ নির্যাতিত নিপীড়িত হচ্ছে তখনই আমার মনে পরিকল্পনা আসে যে তাদের জন্য কিছু করতে হবে। সেই দায়বদ্ধতা থেকেই জনসেবার কাজে সম্পৃক্ত হওয়া।বর্তমান সরকারের আমলে এই এলাকায় অনেক উন্নয়ন ঘটেছে। রাস্তাঘাট থেকেশুরু করে ব্রিজ সহ অনেক উন্নয়ন হয়েছে। তার জন্য আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করি যে তিনি আমাদের নিয়ে ভাবেন এবং গরীব দুঃখী অসহায় সাধারন মানুষের মানুষের পাশে দাঁড়ান।আমাদের এলাকার অনেক মানুষ এখনো দরিদ্র। প্রকৃতির সাথে তারা প্রতিনিয়ত যুদ্ধ করে বেচে থাকে। তাই সেই অল্প বরাদ্দে এই সীমাহীন চাহিদা পুরন করা সম্ভব হয় নাা।তাছাড়া কর্মসংস্থানের অভাবের কারনে অনেকেই বেকার থেকে হতাশায় ভুগছেন যার ফলে বাড়ছে মাদক গ্রহনের প্রবনতা এবং সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড। তাই আগামী সময়ে আমার লক্ষ্য এই এলাকাকে মাদকমুক্ত করে একটি মডেল এলাকা হিসেবে গড়ে যেতে চাই।