ফণীর তান্ডবে খুলনায় লন্ডভন্ড প্রায় সাড়ে ৪ হাজার ঘরবাড়ি 

254
মোঃ আলামিন খাঁন
ঘূর্ণিঝড় ফণীর আঘাতে খুলনার দাকোপ, কয়রা ও বটিয়াঘাটায় প্রায় সাড়ে ৪ হাজার ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। এর মধ্যে ৯৯০টি ঘরবাড়ি সম্পূর্ণভাবে বিধ্বস্ত হয়েছে। বাকি ৩ হাজার ৬৫০টি ঘর আংশিক বিধ্বস্ত হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ের কারণে বিভিন্ন স্থানের গাছপালা উপড়ে পড়েছে। তলিয়ে গেছে প্রায় ২ হাজার ঘরবাড়ি। এ ছাড়াও দাকোপের বরনপাড়া, বটিয়াঘাটার মল্লিকের মোড়ের কচি বানিয়া, বারোআড়িয়ার সুন্দরমহলের রাস্তা ভেঙে গেছে।
পানি উন্নয়ন বোর্ডের খুলনার প্রকৌশলী পলাশ কুমার ব্যানার্জী জানান, ভাঙন এলাকায় দ্রুত কাজ চলছে। শীঘ্রই সমাধান হয়ে যাবে। এ দিকে ঘূর্ণিঝড় ফণীর প্রভাব শেষ হতেই সাইক্লোন শেল্টার থেকে বাড়ি ফিরতে শুরু করেছে উপকূলের মানুষ। কয়রা সদর ইউনিয়নের ইউপি সদস্য হরেন্দ্রনাথ সরকার বলেন, বাতাসের গতিবেগ কমে আসতেই বীণাপাণি স্কুল কেন্দ্র, গোলখালি, জোড়সিং সাইক্লোন শেল্টার থেকে মানুষজন বাড়ি ফিরতে শুরু করেছে। খুলনা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন জানান, ঘূর্ণিঝড়ের সময় ৩৫০টি শেল্টারহোম ও ৫ শতাধিকের বেশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রায় ২ লাখ ৫২ হাজার মানুষ আশ্রয় নেয়। সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি সাড়ে ৩ হাজার স্বেচ্ছাসেবক ঘূর্ণিঝড়ের ক্ষতি মোকাবিলায় কাজ করছেন।