স্বজনদের কান্নায় ভারি মর্গের বাতাস

429
 
ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে ভোর থেকেই আসতে থাকে একের পর এক লাশ। বেলা বাড়ার সঙ্গে বাড়তে থাকে লাশের সারি। সকাল থেকেই সেখানে ভিড় করেন অগ্নিকান্ডের পর নিখোঁজ হওয়া মানুষদের স্বজনেরা। তারা কেউ কাঁদছিলেন। কেউ ছুটছিলেন এদিক ওদিক। কেউ কেউ প্রিয় স্বজনের আগুনে পোড়া মৃত দেহটি পেয়ে বিলাপ করছিলেন। স্বজন হারানোদের এমন বিলাপে সকাল থেকে ভারি হয়ে আছে ঢামেক হাসপাতালের মর্গের বাতাস। মর্গে রাখা অধিকাংশ লাশই সনাক্ত করার মতো নয়। লাশগুলো পুড়ে অঙ্গার হয়ে গেছে।
তবে স্বজনদের কেউ কেউ আকার আকৃতি ও বিভিন্ন হিহ্ন দেখে তাদের লাশ শনাক্তের চেষ্টা করছেন। ভাইয়ের সন্ধানে গভীর রাত থেকে মর্গে অবস্থান করছিলেন অ্যাডভোকেট সুমাইয়া আক্তার। কান্না করতে করতে তিনি বলেন, ‘আমার ভাইয়ের হাত ভেঙে গিয়েছিল। তার হাতের ভেতর অপারেশন করে রড দেয়া হয়। শরীর পুড়ে গেলেও হাতের রড ও কোমরের বেল্ট দেখে আমরা নিশ্চিত হয়েছি। এদিকে পরিচয় সনাক্তের পর দুটি লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। সূত্র : মানবজমিন