বাংলাদেশ হোন্ডার কারখানা উদ্বোধন মুন্সীগঞ্জে

412

রোববার শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু গজারিয়া উপজেলার চর বাউশিয়ায় আব্দুল মোমেন ইকনমি জোনে প্রতিষ্ঠিত এ কারখানার উদ্বোধন করেন।

জাপানের হোন্ডা মোটর করপোরেশন ও বাংলাদেশ ইস্পাত ও প্রকৌশল সংস্থার (বিএসইসি) যৌথ মালিকানায় প্রতিষ্ঠিত হয়েছে বিএইচএল।

বিএইচএল-এর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, নতুন কারখানায় জাপানের হোন্ডা মোটরের কারিগরি সহায়তায় প্রাথমিকভাবে ঝালাই ও পেইন্টিংয়ের কাজ শুরু হবে এবং বাংলাদেশ হোন্ডা প্রাইভেট লিমিটেড (বিএইচএল) স্থানীয়ভাবে মোটরসাইকেলের বডি ফ্রেম ও সুইং আর্ম তৈরি করবে। তবে খুব শিগগিরই অন্যান্য অংশের উপাদনও শুরু হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মুন্সীগঞ্জে ২৫ একর জমির উপর ২৩০ কোটি  টাকা ব্যয়ে যৌথভাবে এই কোম্পানি গড়ে তোলে হোন্ডা ও বিএসইসি। এখানে ৭০ ভাগ হোন্ডা এবং ৩০ ভাগ বিএসইসি বিনিয়োগ করেছে।

২০১৭ সালের ৫ নভেম্বর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের পর এক বছরের মধ্যে কারখানাটির উদ্বোধন হলো। এই কারখানায় বছরে এক লাখ মোটরসাইকেল উৎপাদনের ক্ষমতা রয়েছে। বাজারের প্রবণতা বুঝে এই কারখানায় ২০২১ সালের মধ্যে ২ লাখ মোটরসাইকেল উৎপাদনের জন্য প্রয়োজনীয় বিনিয়োগ করার পরিকল্পনা রয়েছে। মূল জমির এক তৃতীয়াংশের উপর বর্তমান কারখানা অবস্থান করছে। বাজার বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে বাকি দুই তৃতীয়াংশেও পূর্ণাঙ্গ কারখানা নির্মাণ করা হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

বর্তমানে এখানে ৩৯০ জন কাজ করছেন।

উদ্বোধনী বক্তব্যে প্রধান আতিথি শিল্প মন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেন, “এটি জাপান ও বাংলাদেশের বিনিয়োগের একটি সফল দৃষ্টান্ত। আজ থেকে এতে বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদন শুরু হচ্ছে। এটি বাংলাদেশের জন্য একটি স্মরণীয় দিন। দীর্ঘ ৫ বছরের প্রচেষ্টায় হোন্ডা ব্রান্ডের মোটরসাইকেল সংযোজন থেকে নিজস্ব ফ্যাক্টরিতে উৎপাদন শুরু হলো।”

আমু আরও বলেন, দেশের জনগণের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে সাশ্রয়ী মূল্যে বিশ্বমানের মোটরসাইকেল উৎপাদন আমাদের সরকারের অন্যতম লক্ষ্য। ২০২৫ সালের মধ্যে  মোটরসাইকেল শিল্প খাতের ব্যাপক উন্নয়নের লক্ষ্য নিয়ে আমরা কাজ করছি। এ লক্ষ্য অর্জনে শিল্প মন্ত্রণালয় ‘জাতীয়  মোটর সাইকেল শিল্প উন্নয়ন নীতি ২০১৮’ প্রণয়ন করেছে। এ নীতি প্রণয়নের ফলে উদীয়মান শিল্পখাত হিসেবে মোটরসাইকেল শিল্পখাত আত্মপ্রকাশ করেছে।

ইতিমধ্যে এ খাতে কয়েক হাজার দক্ষ জনবল সৃষ্টির পাশাপাশি দেড় হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ হয়েছে বলেও জানান মন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে ইন্টার-পার্লামেন্ট ইউনিয়নের প্রেসিডেন্ট সাংসদ সাবের হোসেন চৌধুরী, বাংলাদেশ ইকনমি জোনের নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী, বাংলাদেশ ইস্পাত ও প্রকৌশল সংস্থার (বিএসইসি) চেয়ারম্যান  ও বাংলাদেশ হোন্ডা প্রইভেট লিমিটেডের পরিচালনা পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান, বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানি রাষ্ট্রদূত হিরোয়াসু ইজুমি উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া হোন্ডার পক্ষ থেকেও বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।