ফকিরহাটে এক সন্তানের জননী আত্মহত্যার ঘটনায় ঃ নতুন রহস্যেরে সৃষ্টি

379

ফকিরহাট উপজেলায় স্বামীর পরকীয়ায় এক সন্তানের জননী যুথি আত্মহত্যার ঘটনায় এলাকা জুড়ে না না জল্পনা কল্পনার সৃষ্টি হয়েছে। পরিকল্পিত ভাবে যুথিকে হত্যা করা হয়েছে। বলে দাবি করছে তার পিতা আনোয়ার হোসেন ও মামা টিপু। এঘটনাটি ঘটেছে শুভদিয়া দেয়াপাড়া গ্রামের জাহাঙ্গীরের পুত্র ফজলুর নিজ বাড়ীতে গত ১১/১০/১৮ বৃহঃ বার রাতে সরজমিনে গেলে স্থানীয়রা জানান।
গত ১০/১১/১৮ ইং তারিখে শুভদিয়া দেয়াপাড়া গ্রামের জাহঙ্গীরের পুত্র ফজলু গৌরম্ভা কলেজ সন্নিকটে একটি সু-এর দোকান রয়েছে। সেখানে দোকাদারির সুযোগে বিভিন্ন মেয়েদের সঙ্গে পরকীয়া জড়িয়ে পড়ে ফজলু তার স্ত্রী রেশমা আক্তার যুথির সাথে এ নিয়ে প্রয়শই ঝগড়া বিবাদে লেগে থাকতো স্ত্রী যুথি এর প্রতিবাদ করলে তার উপর অমানসিক নির্যাতন সহ নানাবিধ চাপ সৃষ্টি করতো। এর ধারাবাহিকতায় গত বুধবার দিবাগত বৃহঃবার রাতে ফজলুর পরকীয়ায় মোবাইল ফোনে ধারনকৃত স্ত্রী যুথিকে দেখানোর পরে স্বামী-স্ত্রীর ভিতর চরম বিরোধের সৃষ্টিতে ফজলুর তার স্ত্রীর সঙ্গে খুবই খারাপ কিছু করে যে কারনে তার মৃত্যু হয়েছে বলে এনিয়ে এলাকায় না-না জল্পনা কল্পনার সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে নিহত যুথির পিতা রামপাল উপজেলার চাকশ্রী গ্রামের আনোয়ার হোসেন মামা টিপু খালু আসাদ অভিযোগ করে বলেন ফজলু ও যুথি ভালবেসে বিয়ে করেছিল। তাদের একটি ৩ বছরের কন্যা সন্তান রয়েছে।জামাই ফজলু বেকার থাকায় কন্যার সুখের কথা চিন্তা করে সংসারের মালামাল ও নগত ৪ লক্ষ টাকা দিয়ে ও কোনও লাভ হলো না। অর্থ পেয়ে ফজলু আরও বেপরোয়া ভাবে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ায় যুথি বাধা দেওয়ায় তার মৃত্যু হয়েছে। থানা পুলিশ সুত্র জানা যায় শুভদিয়া দেয়াপাড়া গ্রামের জাহাঙ্গীরের পুত্র ফজলুর বাড়ীতে রেশমা আকতার যুথিকে মৃত্যু অবস্থায় ঘরের বারান্দায় পাওয়া যায়। লাশ উদ্ধার করে বাগেরহাট মর্গে প্রেরণ করা হয়। পোষ্টমেটম রির্পোট না আসা পর্যন্ত হত্যা না আত্মহত্যা কিছু বলা যাচ্ছে না। থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। যার নং ২২ তারিখ ১১/১০/১৮ ইং অন্যে দিকে নিহতের মামা টিপু খালু আসাদ জানান, যুথি অত্মহত্যা করেছে বলে তার স্বামী প্রচার করে বেড়াচ্ছে। কিন্তু এলাকাবাসী ও আমরা যুথিকে ফজলুদের বারান্দায় মৃত অবস্থায় দেখতে পাই। যা এটা একটি পরিকল্পিত হত্যা। যুথিকে নির্যাতন সহ পারিকল্পিত ভাবে হত্যা করা হয়েছে। আমরা মামলা করে যুথি হত্যার সঠিক বিচার চাইবো।