ধর্ষনের ঘটনায় আদালতে ধর্ষিতার জবানবন্দি : আসামীরা ধরা ছোঁয়ার বাইরে

341

ফকিরহাট থেকে বাদশা আলম ঃ

রামপাল উপজেলা গৌরাম্বা এলাকায় কলেজ পড়–য়া এক ছাত্রীকে ধর্ষনের ঘটনায় বুধবার বাগেরহাট আদালতে ভিকটিম ২২ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে। একইসাথে তার মেডিকেল করান হয়েছে এবং পুলিশের নিরাপদ হেফাজাতে তাকে রাখা হয়েছে। আসামিদের আটক করতে পারেনি পুলিশ আসামিরা বাড়িছেড়ে পালিয়েছে মামলার তদন্তকারি র্কমকর্তা এস আই সত্যতা নিশ্চিত করেছেন (এসব তথ্যতার) ভিকটিম পরিবার পক্ষথেকে অভিযোগ করে বলেন পুলিশ আসামিদের সাথে সখ্যতা গড়েতুলেছে তারা বিসয়টিকে ধামা চাপা দিতে ভিকটিম ও তার স্বজনদের উপর বিভিন্ন চাপ প্রয়োগ করছে, এঘটনাকে অনেক পুরাতন করে পুলিশ বিষয়টিকে পুজি করে রেখে অভিযোগটি মামলা হিসাবে রের্কড ভুক্ত করতে দেরি করেছে। যা ভিকটিমের মেডিকের সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনার আশংখায় রয়েছেন পরিবার জানান, এ ঘটনায় গত ২২/০৯/১৮ইং লম্পট মাহবুব সহ ৪জনের নাম উল্লেখ্য করে ভিকটিমের মা অভিযোগ করেন পুলিশ দির্ঘ্য তদন্ত শেষে, অবশেষে গত ১৫/১০/১৮ইং তারিখে অভিযোগ রের্কড করেন যার নং-৮। রামপাল থানা তদন্তকারি র্কমকর্তা এস আই মনিরুল কবির জানান বিকটিমের মা নুরজাহান বেগম বাদি হয়ে মাহবুব সহ ৪জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন এজাহার ভুক্ত আসামিরা হল মাহাবুব আকঞ্জি(২১), আসাবুর আকঞ্জি (৫০), লতিফা বেগম (৪২) ও আব্দুর রব আলি (৩৫) আসামিরা পালিয়েছে বলে আটক করা সম্ভব হয়নি বলে তিনি জানান। তিনি বলেন গত বুধবার বাগেরহাট চিপজুডিশিয়াল আদালতে বিচারকের নিকট ভিক্টিম ঘটনার ২২ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন এজাহারে উলেখ্য করাহয় গৌরম্ভা হেলাল উদ্দিন ডিগ্রি কলেজের পুড়–য়া ছাত্রী কলেজে আসা-যাওয়ার পথে একই এলাকার বাসিন্দা আসাবুরের পুত্র লম্পট মাহাবুব কু-প্রস্তাব দেওয়া সহ বিভিন্ন সময় উত্ত্যক্ত করত। এঘটনায় মেয়ের মা নুরজাহান বেগম ছেলের অভিভবককে জানান এতে লম্পট মাহাবুব ভিষন ভাবে ক্ষিপ্ত হয় তারই ধারাবাহিকতায় গত ০৬/০৯/২০১৮ইং রাত আনুমানিক ৯.৩০মিনিটেরে দিকে গৌরম্বা বাজার থেকে প্রাইভেট পড়ে বাড়ি আসার পথে জনৈক জাহিদের বাড়ির কাছে পৌছালে লম্পট মাহাবুব পিচন দিকদিয়ে এসে মেয়েটিকে মুখচেপেধরে জাহিদের বাড়িতে নিয়ে ধর্ষন করে,। এবিষয়ে রামপাল থানার অসি বলেন দুজনের মধ্যে প্রেমের সর্ম্পক ছিল। এদিকে ভিকটিমের পরিবার জানান পুলিশের আচরনে তারা হতাশ। অন্যদিকে পুলিশ বলছে আসামিদের আটক করার জন্য অভিযান অব্যহত রেখেছি।