খুলনা জোনের ৯টি পাটকলে মজুরি বেতন পরিশোধ শুরু হয়েছে

394

খুলনা জোনের রাষ্ট্রায়ত্ত ৯টি পাটকলের শ্রমিক-কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের বকেয়া মজুরি ও বেতন পরিশোধ করা শুরু হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকেই স্ব স্ব পাটকলে শ্রমিক-কর্মচারীদের মাঝে বকেয়া মজুরি ও বেতন প্রদান করা হয়। ৪ অক্টোবর পর্যন্ত বকেয়া মজুরি ও বেতন বাবদ নয় পাটকলে ৩৭ কোটি ৯০ লাখ ৫৮ হাজার টাকা পরিশোধ করা হচ্ছে। আজ বুধবারও মজুরি ও বেতন প্রদান করা হবে। এদিকে মজুরি ও বেতন প্রদান করায় শ্রমিক-কর্মচারীদের মাঝে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে।
প্লাটিনাম জুট মিলের শ্রমিক মিজানুর রহমান বলেন, শ্রমিকদের নিয়মিত মজুরি প্রদান করা হয় না। ঈদ উল আযহার আগে আংশিক মজুরি ও উৎসব ভাতা প্রদান করা হয়। এরপর কিছুদিন আগে এক সপ্তাহের মজুরি প্রদান করা হয়েছে। এখনও ৮ সপ্তাহের মজুরি বকেয়া রয়েছে। তবে গতকাল থেকে মিল কর্তৃপক্ষ পূর্বের সকল বকেয়া পরিশোধ করছে। ফলে শ্রমিকদের মাঝে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে।
প্লাটিনাম জুট মিলের প্রকল্প প্রধান মুজিবর রহমান মল্লিক এ প্রতিবেদককে জানান, সরকারি ফান্ড  থেকে গত ৪ অক্টোবর পর্যন্ত প্লাটিনাম জুট মিলের শ্রমিক বকেয়া ৮ সপ্তাহের মজুরি এবং কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের ২ মাসের বেতন প্রদান করা হচ্ছে। গতকাল সন্ধ্যা ৬টা থেকে বকেয়া প্রদান শুরু হয়েছে। তিনি বলেন, শ্রমিক-কর্মচারীদের বকেয়া পাওনা পরিশোধ করায় তাদের মাঝে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে।
পাটকলগুলোর সূত্রে জানা যায়, গত ৪ অক্টোবর পর্যন্ত বকেয়া মজুরি ও বেতন বাবদ নয় পাটকলে ৩৭ কোটি ৯০ লাখ ৫৮ হাজার টাকা পরিশোধ করা হচ্ছে। এর মধ্যে শ্রমিকদের মজুরি বাবদ ৩১ কোটি ৭০ লাখ ৫০ হাজার টাকা এবং কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের ৬ কোটি ২০ লাখ ৮ হাজার টাকা। খুলনার খালিশপুর এলাকার ক্রিসেন্ট জুট মিলে ৮ কোটি ২৪ লাখ ২৬ হাজার টাকা প্রদান করা হবে। এর মধ্যে শ্রমিকদের মজুরি ৭ কোটি ২৯ লাখ ২৬ হাজার টাকা এবং কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের বেতন ৯৫ লাখ টাকা। প্লাটিনাম জুট মিলে ৮ কোটি ৭১ লাখ ৮৫ হাজার টাকা প্রদান করা হবে। এর মধ্যে শ্রমিকদের মজুরি ৭ কোটি ৫৬ লাখ ৮৫ হাজার টাকা এবং কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের বেতন ১ কোটি ১৫ লাখ টাকা। খালিশপুর জুট মিলে ৩ কোটি ৫ লাখ ৬১ হাজার টাকা প্রদান করা হবে। এর মধ্যে শ্রমিকদের মজুরি ২ কোটি ৫০ লাখ ৬১ হাজার টাকা এবং কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের বেতন ৫৫ লাখ টাকা। দৌলতপুর জুট মিলে ৯৬ লাখ ৯০ হাজার টাকা প্রদান করা হবে। এর মধ্যে শ্রমিকদের মজুরি ৫০ লাখ ৩০ হাজার টাকা এবং কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের বেতন ৪৬ লাখ ৬০ হাজার টাকা। দিঘলিয়া এলাকার স্টার জুট মিলে ৫ কোটি ৭৬ লাখ ৪৪ হাজার টাকা প্রদান করা হবে। এর মধ্যে শ্রমিকদের মজুরি ৫ কোটি ১৯ লাখ ৪৪ হাজার টাকা এবং কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের বেতন ৫৭ লাখ টাকা। আটরা শিল্পাঞ্চলের আলীম জুট মিলে ৩ কোটি ১৭ লাখ ২৪ হাজার টাকা প্রদান করা হবে। এর মধ্যে শ্রমিকদের মজুরি ২ কোটি ১৩ লাখ ২৪ হাজার টাকা এবং কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের বেতন ১ কোটি ৮ লাখ টাকা। ইস্টার্ণ জুট মিলে ৩ কোটি ৫৭ লাখ ৩ হাজার টাকা প্রদান করা হবে। এর মধ্যে শ্রমিকদের মজুরি ২ কোটি ৭৭ লাখ ৩ হাজার টাকা এবং কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের বেতন ৮০ লাখ টাকা। যশোর জেলার জে জে আই জুট মিলে ৩ কোটি ২০ লাখ ৮৩ হাজার টাকা প্রদান করা হবে। এর মধ্যে শ্রমিকদের মজুরি ২ কোটি ৭৫ লাখ ৩৫ হাজার টাকা এবং কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের বেতন ৪৫ লাখ ৪৮ হাজার টাকা। কার্পেটিং জুট মিলে ১ কোটি ২০ লাখ ৪২ হাজার টাকা প্রদান করা হবে। এর মধ্যে শ্রমিকদের মজুরি ৯৮ লাখ ৪২ হাজার টাকা এবং কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের বেতন ২২ লাখ টাকা।
বিজেএমসির আঞ্চলিক কর্মকর্তা শেখ রহমত উল্লাহ বলেন, গতকাল খুলনা-যশোর অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ত ৯টি পাটকলের শ্রমিক-কর্মচারীদের বকেয়া পাওনা প্রদান শুরু হয়েছে। এ অঞ্চলের ৯ পাটকলে প্রায় ৩৮ কোটি টাকা প্রদান করা হচ্ছে। ফলে এখন আর শ্রমিক-কর্মচারীদের কোন পাওনা থাকছে না। (সূত্র-সময়ের খবর)