শাহ আমানতে জরুরী অবতরণকারী ফ্লাইটে যান্ত্রিক ত্রুটি ছিলো: ইউএস-বাংলা

448

সিআইএন টিভি ২৪  ডেক্স ঃ  সম্প্রতি চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি বিমানের জরুরি অবতরণ করার ঘটনাকে ‘যান্ত্রিক ত্রুটি’ হিসেবে উল্লেখ করেছে ইউএস-বাংলা কর্তৃপক্ষ। গতকাল বুধবার রাজধানীর একটি হোটেলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানায় ইউএস-বাংলা। ইন্টারন্যাশনাল সিভিল এভিয়েশন অর্গানাইজেশনের নীতিমালা, বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের বিধিবদ্ধ সব নিয়ম অনুসারে উড্ডয়নের আগে তিন ধাপে ওই বিমানটির টেকনিক্যাল চেকিং করা হয়েছিল বলে সংবাদ সম্মেলনে জানায় এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ। কিন্তু তারপরও বিমানটির সামনের চাকা কী কারণে সেদিন কাজ করেনি, সে বিষয়ে তদন্ত চলছে বলে জানায় ইউএস-বাংলা। সেদিনের সেই অনাকাক্সিক্ষত ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইমরান আসিফ বলেন, এ রকম অনেক ঘটনা আছে, যেখানে গিয়ার ফেল করার ব্যাপারগুলোকে যথাযথ দক্ষতার সঙ্গে নিয়ন্ত্রণ করতে না পারার কারণে হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। সে ক্ষেত্রে আমাদের ঘটনাটার ক্ষেত্রে দেখতে পাই যে, আমাদের ক্রুরা ভালোভাবে ব্যাপারটা নিয়ন্ত্রণ করতে পেরেছেন। সেদিনের উদ্ভূত পরিস্থিতি প্রসঙ্গে সংশ্লিষ্ট বিমানের পাইলট ক্যাপ্টেন জাকারিয়া সবুজ বলেন, বাস্তব পরিস্থিতি কেমন, সেটা জানার অধিকার যাত্রীদের আছে। ফলে আমি তাঁদের পুরাপুরি বলে দিয়েছিলাম যে আমরা নোজ গিয়ার ছাড়াই ল্যান্ড করব। এবং সে জন্য নিরাপত্তার প্রশ্নে যে ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া দরকার, আমাদের কেবিন ক্রুরা সেটা যাত্রীদের বলে দিয়েছিলেন। সেদিনের সেই অপ্রত্যাশিত পরিস্থিতি সামলে উঠতে পারার পেছনে কেবল পাইলটের একার ভূমিকা নয়, বিমানে উপস্থিত সবারই ভূমিকা ছিল বলে উল্লেখ করেন জাকারিয়া সবুজ। গত ২৬ সেপ্টেম্বর ১৬৪ যাত্রী নিয়ে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি বিমান ঢাকা থেকে কক্সবাজারে পৌঁছালে অবতরণের সময় সামনের চাকা (নোজ গিয়ার) বের হচ্ছিল না। পরে পাইলট ও কো-পাইলট দক্ষতার সঙ্গে বিমানটিকে চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণ করান। সে ঘটনায় কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।