বাগেরহাটে আ.লীগের নেতাসহ নিহত ২

397

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে হামলায় স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা আনসার আলী দিহিদার (৫৩) ও কর্মী শুকুর আলী শেখ (৪২) নিহত হয়েছেন। মোরেলগঞ্জ উপজেলার দৈবজ্ঞহাটি ইউনিয়ন পরিষদে সোমবার বিকেলে ঘটনাটি ঘটে।

এ ঘটনায় দৈবজ্ঞহাটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফকির শহীদুল ইসলামসহ দুজনকে আটক করেছে পুলিশ। বিকেলের ওই ঘটনার পর নিহত আনসারের বাড়িতে হামলা চালায় একদল দুর্বৃত্ত। এ সময় আসবাব ভাঙচুর করার পাশাপাশি বাড়ির বাইরে রাখা একটি মোটরসাইকেলে আগুন দেওয়া হয়।

নিহত আনসার আলী দৈবজ্ঞহাটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জোকা গ্রামের বাসিন্দা। আর শুকুর আলী একই গ্রামের মোসলেম শেখের ছেলে। এ ঘটনায় দুজন আহত হয়েছেন। তাঁরা হলেন ইউনিয়ন তাঁতী লীগের শ্রম উন্নয়নবিষয়ক সম্পাদক জোকা গ্রামের বাবুল শেখ (২৫) এবং আলতিব্রুজবুনিয়া গ্রামের বাসিন্দা মিলটন খান (৩৬)।

স্থানীয় সূত্র বলেছে, নিহত শুকুর শেখ ও আহত বাবুল নিহত আনসার আলীর অনুসারী। হাসপাতালে নেওয়ার সময় তাঁদের তিনজনেরই বোরকা পরা ছিল। আহত মিলটন দৈবজ্ঞহাটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহীদুল ইসলামের ভাগনে।
বাগেরহাট হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়ার সময় বাবুল প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমরা তিনজন (তিনি, আনসার ও শুকুর) বাজারে ছিলাম। বিকেল পৌনে পাঁচটার দিকে সেখান থেকে ডেকে নিয়ে চেয়ারম্যান লোকজন দিয়ে আমাদের বোরকা পরান। পরে লোকজন ডেকে চেয়ারম্যানকে মারতে এসেছি বলে দা, লাঠিসোঁটা দিয়ে মারধর করেন এবং গুলি করেন।’
তবে আহত মিলটন প্রথম আলোকে বলেন, বিকেলে চেয়ারম্যান শহীদুল ইসলাম তাঁর ইউনিয়ন পরিষদে বসে ছিলেন। এ সময় বোরকা পরা তিন-চারজন তাঁর কার্যালয়ে ঢুকে চেয়ারম্যানকে গুলি করার চেষ্টা করেন। তাঁদের বাধা দিতে গিয়ে তিনি আহত হন। তখন চেয়ারম্যানের সমর্থকেরা ছুটে গিয়ে হামলাকারীদের ধরে ফেলেন। চেয়ারম্যানও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালান। পরে স্থানীয় লোকজন হামলাকারীদের ধরে পিটুনি দেন।

বাগেরহাট সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক শেখ রিয়াদুজ্জামান বলেন, শুকুর শেখ হাসপাতালে আনার আগেই মারা যান। তাঁর শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। আহত ব্যক্তিদের শরীরেও ধারালো অস্ত্রের একাধিক আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। জখম গুরুতর হওয়ায় আনসার ও বাবুলকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।
পরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সূত্র জানায়, সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আনসার আলী মারা গেছেন।
বাগেরহাটের পুলিশ সুপার পঙ্কজ চন্দ্র রায় বলেন, ঘটনার ব্যাপারে দুই ধরনের বক্তব্য পাওয়া যাচ্ছে। পুলিশ চেয়ারম্যানসহ দুজনকে আটক করেছে। এ ছাড়া এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।